• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১০, ২০২৩, ১২:৫৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১০, ২০২৩, ১২:৫৬ এএম

এশিয়া কাপ

২১ রানে হার বাংলাদেশের

২১ রানে হার বাংলাদেশের
ছবি ● সংগৃহীত

এশিয়া কাপের সুপার ফোরে টানা দ্বিতীয় হার দেখলো বাংলাদেশ।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ৭ উইকেটে হারের পর এবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২১ রানে হারল বাংলাদেশ। সুপার ফোরের প্রথম দুই ম্যাচ হেরে ফাইনালের আশা তাই কার্যত শেষ বাংলাদেশের। আগে ব্যাট করে শ্রীলঙ্কা ৯ উইকেট হারিয়ে ২৫৭ রান তুলে। জবাবে ৪৮.১ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৩৪ রানে অলআউট হয় টাইগাররা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৮২ রান করেন তাওহিদ হৃদয়।

জবাব দিতে নেমে ওপেনিংয়ে নাঈম শেখ ও মেহেদী মিরাজ ৫৫ রান যোগ করেন। মিরাজ ২৯ বলে চারটি চারে ২৮ রান করে আউট হয়েছেন। নাঈম ৪৬ বলে ২১ রান করে দৃষ্টিকুটভাবে ক্যাচ দিয়েছেন। বাউন্সে ‍পুল খেলার প্রস্তুতি নিয়ে বলে শুধু ব্যাট ছুঁইয়ে দিয়েছেন তিনি। এরপর সাকিব ফিরেছেন ৩ রান করে। লিটন স্কোরবোর্ডে যোগ করতে পেরেছেন ১৫ রান। ৮৩ রানেই ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

ওই বিপর্যয় সামাল দিতে দলের হাল ধরেন তাওহিদ হৃদয় ও মুশফিকুর রহিম। তবে হাত খুলতেই আউট হন মুশফিক। টাইগার উইকেটরক্ষক ব্যাটার ৪৮ বলে ২৯ রান করেছেন। এতে ভাঙে হৃদয়ের সঙ্গে তার ১২২ বলে ৭২ রানের জুটি।

মুশফিকের ফেরার পর শেষ স্বীকৃত ব্যাটার হিসেবে উইকেটে আসেন শামীম পাটোয়ারী। কিন্তু ১০ বলে ৫ রান তুলতেই ফেরেন সাজঘরে। শামীমের ফেরার পর দলের হয়ে একা লড়েন তাওহিদ হৃদয়। কিন্তু তিনিও শেষ অবধি যেতে পারেননি। ৯৭ রানে ৮২ করেন এই ডানহাতি ব্যাটার। শেষ উইকেটে নাসুম আহমেদ ও মাহমুদ হাসান চেষ্টা করেছেন বটে, তাতে অবশ্য শুধু হারের ব্যবধানই কমেছে।

এর আগে শ্রীলঙ্কার হয়ে সর্বোচ্চ ৯৩ রানের ইনিংস খেলেন চারে নামা ব্যাটার সাদিরা সামারাবিক্রমা। ৭২ বলে আটটি চার ও দুটি ছক্কায় ওই ইনিংস খেলেন তিনি। এছাড়া শ্রীলঙ্কার হয়ে ওপেনার পাথুন নিশাঙ্কা ৪০ রানের ইনিংস খেলেন। কুশল মেন্ডিস ৫০ রান করেন। দাশুন শানাকা যোগ করেন ২৪ রান। বাংলাদেশের হয়ে পেসার তাসকিন ও হাসান মাহমুদ তিনটি করে উইকেট নিয়েছেন। অন্য পেসার শরিফুল নিয়েছেন দুই উইকেট। শ্রীলঙ্কার নয় উইকেটের আটটিই নিয়েছেন পেসাররা।

জাগরণ/খেলা/ক্রিকেট/এশিয়াকাপ/এমএ