• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১২ এপ্রিল, ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৬, ২০২৪, ১২:৫৬ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৬, ২০২৪, ১২:৫৬ এএম

ভোটকেন্দ্র-ব্যালট বাক্স নিরাপত্তায় ৫ লাখ আনসার

ভোটকেন্দ্র-ব্যালট বাক্স নিরাপত্তায় ৫ লাখ আনসার
ছবি ● প্রতীকী

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র ও ব্যালট বাক্সের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সারা দেশে ৫ লাখ ১৭ হাজার ১৪৩ আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) শুক্রবার রাজধানীর খিলগাঁও‌য়ে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদর দপ্তরের আ‌য়ো‌জিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আমিনুল হক।

মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আমিনুল হক ব‌লেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী সারা দেশে ৪২ হাজার ১৪৯টি ভোটকেন্দ্রের আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও ব্যালট বাক্সের নিরাপত্তা রক্ষায় ৫ লাখ ৫ হাজার ৭৮৮ আনসার ও ভিডিপির সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

এরই মধ্যে ২৫০ প্লাটুন আনসার ১ হাজারটি সেকশনে ভাগ হয়ে ২৯ ডিসেম্বর থে‌কে আগামী ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোতায়েন রয়েছে। উপকূলের ১৩টি উপজেলা বাদে সকল উপজেলায় আনসার ব্যাটালিয়ন এর একটি করে স্ট্রাইকিং টিম নির্বাচনী পরিবেশ অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ রাখতে সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তার পরিকল্পনা অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করছে। এছাড়াও নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ২ হাজার ৮৫৫ কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োজিত রয়েছেন।

মহাপরিচালক আরও বলেন, নির্বাচনী কেন্দ্রের নিরাপত্তায় প্রতিটি কেন্দ্রে মোট ১২ জন করে আনসার ও ভিডিপি সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। তাদের মধ্যে একজন প্লাটুন কমান্ডার (পিসি) ও একজন সহকারী প্লাটুন কমান্ডার (এপিসি) এর নেতৃত্বে ৬ জন পুরুষ ও ৪ জন নারী ভিডিপি সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। পিসি ও এপিসিরা অস্ত্রসহ এবং ভিডিপি সদস্যরা লাঠি হাতে ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত থাকবেন।

আনসার ও ভিডিপি’র মহাপরিচালক বলেন, সাধারণ মানুষ নির্ভয়ে ভোটকেন্দ্রে আসতে পারে সেজন্য আনসার ভিডিপির সদস্যরা নিরাপত্তার পরিবেশ নিশ্চিত করতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন।

সাংবা‌দিক‌দের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সার্বক্ষণিক প্রস্তুত আছে। নির্বাচন বিরোধী যারা আছে তারা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিভিন্ন কার্যক্রম চালানোর চেষ্টা করবে। আমরা সচেতন আছি। নাশকতা নির্মূল করতে আমরা সক্ষম।’ 

রেল ও কেপিআই স্থাপনার নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার শঙ্কা আছে কিনা জানতে চাইলে আনসার প্রধান বলেন, ‘নাশকতা রোধে অভিযান ও সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে আনসার বাহিনী। কেপিআই স্থাপনায় আমাদের যে নিরাপত্তা ছিল সেটি মোতায়েন থাকবে। রেলের নিরাপত্তায় ১৫ হাজার ৭০০ সদস্য কাজ করছে।’

গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী সারা দেশে কতগুলো কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে জানতে চাইলে আমিনুল হক বলেন, কোনো কেন্দ্রে ভোট দিতে পারবে না এমন কোনো তথ্য নেই। তবে নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বিতার কারণে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হতে পারে। পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তথ্যানুযায়ী, ১০ হাজার কেন্দ্রের কথা বলা হয়েছে। এ সব কেন্দ্রে আমরা বেশি গুরুত্ব দেব। আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক আছি। যেকোনো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাজ করব।’

সংবাদ স‌ম্মেল‌নে আনসার-ভিডিপির অতিরিক্ত মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজিম উদ্দিন, উপমহাপরিচালক (প্রশাসন) কর্নেল তসলিম এহসান, উপমহাপরিচালক (অপারেশন্স) ফখরুল আলম, উপমহাপরিচালক (প্রশিক্ষণ) জিয়াউল হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জাগরণ/দ্বাদশজাতীয়সংসদনির্বাচন/এসএসকে