• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: জুন ৯, ২০১৯, ০৪:২৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ৯, ২০১৯, ০৪:৩১ পিএম

কথা বলার স্পেস পেতে শপথ নিয়েছি : রুমিন

জাগরণ প্রতিবেদক
কথা বলার স্পেস পেতে শপথ নিয়েছি : রুমিন
ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা-ফাইল ছবি

দল, দেশ ও মানুষের কথা বলার স্পেস পেতে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন বলে দাবি করেছেন বিএনপির সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

রোববার (৯ জুন) সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ার পর সাংবাদিকদের কাছে দেয়া এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এমন দাবি করেন।

রুমিন ফারহানা বলেন, এই সংসদটি জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়। গঠিত হওয়ার পর আমি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় এই সংসদকে অবৈধ বলেছি। আমি এখনও তা বলছি। তারপরও নিজে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছি কারণ সংসদ হচ্ছে আমাদের গণতান্ত্রিক স্পেস। আমাদের কথা বলার জায়গাগুলো ক্রমেই সঙ্কুচিত হয়ে আসছে। এমন পরিস্থিতিতে দেখতে পাচ্ছি সংসদ একটি ভালো অ্যাভিনিউ- যেটা আমরা ব্যবহার করতে পারি। আমাদের দলের কথা, দেশের কথা ও মানুষের কথা বলার জন্য এই স্পেসটা ব্যবহার করার জন্যই আমার এই সংসদে আসা।

তিনি বলেন, আমি খুব খুশি হবো যদি আমার সংসদ সদস্য হওয়ার মেয়াদ একদিনের বেশি না হয়। আমি চাই যেন অতি দ্রুত একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জনপ্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠিত হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে রুমিন বলেন, আমরা সংখ্যাগত দিক থেকে নিশ্চয়ই অনেক কম। তারপরও আশা করছি সংসদে যদি একজনও ন্যায্য কথা বলেন তাকে যেন যথেষ্ট সময় ও সুযোগ দেয়া হয়। সরকারের নিজের স্বার্থেই এই সময় ও সুযোগ দেয়া উচিত।

দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। তার মামলার মেরিট, তার বয়স, সামাজিক অবস্থান বিবেচনায় তিনি বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী তাৎক্ষণিক জামিন লাভের যোগ্য। তাকে জামিন বঞ্চিত করে কারাগারে রাখা হয়েছে। এর পুরোটাই বেআইনি। বিএনপি চেয়ারপারসন রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। নিশ্চয়ই আমি এ বিষয়গুলো সংসদে তুলবো।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি মাত্রই শপথ নিয়েছি। আমি এলাকায় ছিলাম না। ফলে সেখানে কী হয়েছে আমার জানা নেই।

রুমিন ফারহানা সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ার একদিন আগে শনিবার (৮ জুন) বিকালে ‘কাবিখা’ কর্মসূচির (কাজের বিনিময়ে খাদ্য) ও গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচি (টিআর) এর বরাদ্দ নেয়াকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুরে ফাস্ট গেইট এলাকায় বিএনপির দু’গ্রুপে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের অভিযোগ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা উকিল আবদুস সাত্তার ভূঁইয়ার সমর্থক এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানার সমর্থকদের মধ্যে ওই সংঘর্ষ ঘটে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন এবং ঢাকা-সিলেট ও কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে প্রায় ১ ঘণ্টা সবধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকে।

এইচএস/এসএমএম

Space for Advertisement