• ঢাকা
  • রবিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: জুলাই ৮, ২০১৯, ০১:৩৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ৮, ২০১৯, ০১:৩৫ পিএম

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা কাদের সিদ্দিকীর 

জাগরণ প্রতিবেদক
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা কাদের সিদ্দিকীর 
ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে বক্তব্য রাখছেন কাদের সিদ্দিকী ; ছবি- দৈনিক জাগরণ


নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী। 

সোমবার (৮ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এক সংবাদ সম্মেলনে ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা দেন তিনি। 

জনগণের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে কাদের সিদ্দিকী বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অস্তিত্ব বা ঠিকানা খোঁজার চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে জনগণের সকল সমস্যায় তাদের পাশে থাকার অঙ্গীকারে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ নতুন উদ্যমে পথ চলা শুরু করছে। 

কাদের সিদ্দিকী বলেন, নির্বাচন-পরবর্তী এই ৭ মাস জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অস্তিত্বই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আনুষ্ঠানিকভাবে মতিঝিলে তার (ড. কামাল হোসেন) অফিসে একটি অসমাপ্ত বৈঠক ছাড়া কখনও কোনও নির্দিষ্ট বিষয়বস্তু নিয়ে কোনও বৈঠক পর্যন্ত হয়নি। তাতে মনে হয় কোনোকালে কখনও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নামে বাংলাদেশে কোনও রাজনৈতিক জোট গঠন হয়নি। 

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ছেড়ে নতুন কোনো রাজনৈতিক জোটে যোগ দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের সিদ্দিকী বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ভবিষ্যতে আর কোনো দিন ক্ষমতায় আসতে পারবে না। গণতন্ত্রমনা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে কাজ করবো।

তিনি বলেন, এমতাবস্থায় দেশের জনগণের প্রকৃত পাহারাদার হিসেবে গঠিত কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ বসে থাকতে পারে না। জাতীর এই ক্রান্তিলগ্নে জনগণকে পাশে নিয়ে নতুন উদ্যমে পথ চলা শুরুর অঙ্গীকার করছি আমরা।

প্রসঙ্গত: গত ১০ জুন উত্তরায় ঐক্যফ্রন্ট নেতা আ স ম আবদুর রবের বাসায় ফ্রন্টের বৈঠক হয়। কিন্তু বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন উপস্থিত না থাকায় কোনও সিদ্ধান্ত ছাড়াই ফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সভা মুলতবি করা হয়। এরপর এক মাস পেরিয়ে গেলেও মুলতবি সভা আর আয়োজন করা হয়নি। 

কাদের সিদ্দিকীর দাবি, ঐক্যফ্রন্টকে কার্যকর করার কোনও উদ্যোগও নেয়া হয়নি। এতে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতাকর্মীদের ক্ষোভ বেড়েছে। ঐক্যফ্রন্টের এমন কর্মকাণ্ডে তাদের নেতা কাদের সিদ্দিকীকে অবজ্ঞা করা হয়েছে বলেই মনে করেন তারা। এমন প্রেক্ষাপটেই গত বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দলের বর্ধিত সভায় ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার দাবি তোলেন দলের নেতাকর্মীরা। এর আগেও নির্বাচন পরবর্তী ঐক্যফ্রন্টের নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে তুলে জোট ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন কাদের সিদ্দিকী।

টিএস/আরআই
 

আরও পড়ুন

Islami Bank
ASUS GLOBAL BRAND