• ঢাকা
  • শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: আগস্ট ৮, ২০১৯, ০৮:৩৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ৮, ২০১৯, ০৮:৩৮ পিএম

ফুটবলার শিহাবের পাশে বিএনপি

জাগরণ প্রতিবেদক
ফুটবলার শিহাবের পাশে বিএনপি
শিহাবের হাতে আর্থিক অনুদানের চেক তুলে দিচ্ছেন আমিনুল হক -ছবি : জাগরণ

দারিদ্রর কাছে পরাজিত হতে যাওয়া ২০১৭ সালের দেশসেরা পাবনার কিশোর ফুটবলার শিহাব উদ্দিনের পাশে দাঁড়িয়েছে বিএনপি। এখন থেকে তার পড়াশুনা ও খেলা সম্পৃক্ত যাবতীয় খরচ বহন করবে দলটি। 

বিএনপির কেন্দ্রীয় ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ও জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল হক বুধবার (৮ আগস্ট) বিকালে শিহাবের হাতে আর্থিক অনুদানের চেক তুলে দেয়ার সময় এ ঘোষণা দেন।

এ সময় আমিনুল বলেন, শিহাব যাতে পড়াশোনা ও ফুটবল খেলা চালিয়ে যেতে পারে সেজন্য তাকে আর্থিক অনুদান দেয়া হবে। এই অনুদান প্রতি মাসে শিহাবের কাছে পৌঁছে যাবে। শিহাব যতদিন পর্যন্ত পড়াশুনা করবেন ততদিন পর্যন্ত আমরা তার পাশে আছি। 

আমিনুল বলেন, ফুটবলার শিহাব উদ্দিনের প্রতিভা আর দরিদ্রের সঙ্গে জীবনযুদ্ধ দেখে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান তার পাশে দাঁড়ানোর জন্য নির্দেশনা দেন।

এ সময়ে তার সঙ্গে ছিলেন- কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক নেতা দবির উদ্দিন তুষার, গোলাম কিবরিয়া, ঢাকা মহানগর পশ্চিম ছাত্রদলের নেতা ইব্রাহীম খলিলসহ স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম আলোকদিয়ার দরিদ্র ভ্যানচালক কোরবান হোসেনের ছেলে শিহাব উদ্দিন ছোটবেলা থেকেই লেখাপড়ার পাশাপাশি ফুটবল খেলায় দক্ষতা অর্জন করে। ২০১৭ সালে তার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে সারা দেশে জাতীয় পর্যায়ে রানার আপ হয় সাঁথিয়ার ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। সেই টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয় শিহাব উদ্দিন। সেরা খেলোয়াড় হিসেবে সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে পুরস্কারও গ্রহণ করেন। এর আগে, তার অধিনায়কত্বেই ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ভুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। তবে দারিদ্র্যের কশাঘাতে বন্ধ হয়ে যায় এই প্রতিভাবান খুদে ফুটবলারের ফুটবল খেলা ও পড়াশুনা। বাবা কোরবান হোসেন অসুস্থ হয়ে উপার্জনে অক্ষম হয়ে পড়লে শিহাবকে বাবার ভ্যান চালিয়ে সংসারের চালাতে হয়। এ নিয়ে কয়েকদিন আগে কিছু গণমাধ্যমে ছবিসহ শিহাবের জীবন সংগ্রামের প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে বিষয়টি সকলের নজরে আসে।

টিএস/ একেএস

আরও পড়ুন