• ঢাকা
  • বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩১, ২০১৯, ০২:০২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : অক্টোবর ৩১, ২০১৯, ০২:০২ পিএম

বিএসএমএমইউ পরিচালকের বক্তব্য ডাহা মিথ্যাচার : রিজভী

জাগরণ প্রতিবেদক
বিএসএমএমইউ পরিচালকের বক্তব্য ডাহা মিথ্যাচার : রিজভী
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী -ফাইল ছবি

চিকিৎসার প্রস্তুতি নিতে খালেদা জিয়ার বেলা দুটা-আড়াইটা বেজে যায়, অনেক সময় ৪টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় চিকিৎসকদের- বিএসএমএমইউ’র পরিচালকের এই বক্তব্যকে সত্যের অপলাপ বলে অভিহিত করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছে, পরিচালকের এ বক্তব্য ডাহা মিথ্যাচার। সাবেক প্রধানমন্ত্রীর অসুস্থতা নিয়ে তার এই বক্তব্য অসৌজন্যমূলক। এ ধরনের বক্তব্যর মধ্য দিয়ে পরিচালক সেনাবাহিনীর একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং চিকিৎসক হিসেবে দুটি উচ্চমানের পেশাকে অবজ্ঞা করেছেন। 

বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএসএমএমইউ’র পরিচালক সরকারের বক্তব্য তোতা পাখির মতো বলে গেছেন মন্তব্য করেন রিজভী। তিনি বলেন, এক দুর্বিষহ অসুস্থার মধ্যে বেগম খালেদা জিয়া দিনযাপন করছেন। তার কোনও চিকিৎসাই হচ্ছে না। 

রিজভী বলেন, দেশনেত্রীর জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হচ্ছে, সেটি পরিচালকের বক্তব্যের মধ্যেই নিহিত রয়েছে। নীল নকশা অনুযায়ী বেগম জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে তাচ্ছিল্য করা হচ্ছে-এটার প্রমাণ। তিনি বলেছেন জীবন-মৃত্যু নিয়ে আমাদের কিছু করার নেই। এই বক্তব্য বিএনপি নেতা-কর্মীসহ দেশবাসীর মধ্যে ভয়াবহ আশঙ্কা ও উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে সাজানো মিথ্যা মামলায় তিন বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত দাবি করে রিজভী বলেন, জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে গতমাসের শেষ সপ্তাহে চার্জ গঠনের জন্য তারিখ নির্ধারিত ছিল। ওই তারিখে গিয়াস কাদের চৌধুরী সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন থাকায় সময়ের আবেদন করা হয়। চার্জগঠনের জন্য ১ম তারিখেই সময়ের আবেদন নামঞ্জুর করে ওয়ারেন্ট দেয়া হয় এবং মামলায় চার্জ গঠন করে সাক্ষীর জন্য তারিখ ধার্য রাখা হয়। পরশু দিন ছিল সাক্ষীর জন্য ১ম তারিখ। ওইদিনই আদালতে ৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। মাত্র ২০ মিনিটে ৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য নেয়ার পরদিনই রায় প্রচারের জন্য দিন ধার্য রাখা হয়। এটা একটা নজীরবিহীন ঘটনা। বিচারকের এই রায় পূর্বপরিকল্পিত ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

পেঁয়াজের দাম বেড়েই চলেছে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, এ পণ্যটির দাম সব রেকর্ড ভেঙেছে। পেঁয়াজ এখন ‘শক অব দি কান্ট্রি’। দুর্নীতি ও ভুলনীতি সরকারের নীতি হওয়ার কারণে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশ ছুঁয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

টিএস/এসএমএম

আরও পড়ুন