• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
প্রকাশিত: নভেম্বর ৭, ২০১৯, ০২:০২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : নভেম্বর ৭, ২০১৯, ০২:০২ পিএম

খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইলেন খোকা তনয় ইশরাক

জাগরন প্রতিবেদক
খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইলেন খোকা তনয় ইশরাক
গণমাধ্যমের সামনে কথা বলেন খোকা তনয় ইশরাক

আমার বাবা কষ্ট নিয়ে চলে গেছেন। দেশে এসেছেন বাক্সবন্দি হয়ে। বৃহস্পতিবার (০৭ নভেম্বর)দুপুরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাবার কফিনের সামনে দাঁড়িয়ে কথাগুলো বলছিলেন খোকা তনয় ইশরাক। 

তিনি বলেন, দেশে দু’জন লোকই আছেন। একজন দেশনেত্রী খালেদা জিয়া। অপরজন হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমি শেখ হাসিনার কাছে আমার দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইবো। আপনি প্রধানমন্ত্রী প্রশাসনকে বলে দিলে এবং বিচার বিভাগকে সহযোগিতা করলে আমার দেশ নেত্রী খালেদা জিয়া মুক্তি পাবে।

ইশরাক বলেন, আমরা চাই না, দেশে কোনো তৃতীয় শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠুক। আমার আবেদন, আমার দেশ নেত্রীকে মুক্তি দেয়ার ব্যবস্থা করে দিন।

সাদেক হোসেন খোকার মরদেহ সকালে দেশে ফেরার পর জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় প্রথম জানাজা শেষে দুপুরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেয়া হয়। সেখানে ইশরাক সকলের উদ্দেশে  কথা বলেন। এসময় সেখানে দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে তার মরদেহের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। 

ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গাজী মাজহারুল আনোয়ার, চিত্রনায়ক উজ্জল এবং গণফোরাম ও এলডিপির পক্ষ থেকেও নেতারা শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন সাদেক হোসেন খোকা। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে তিনি ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন।

চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪ মে দেশ ছাড়েন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা। বিদেশে থাকা অবস্থায় দুটি মামলায় তার সাজা হয়।

গত ১৮ অক্টোবর নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে ভর্তি হন তিনি। গত সোমবার তার শ্বাসনালি থেকে টিউমার অপসারণ করা হয়। নিউইয়র্ক সময় রাত ২টা ৫০ মিনিটে ও বাংলাদেশ সময় সোমবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়।

এইচ এম/বিএস