• ঢাকা
  • সোমবার, ০৩ আগস্ট, ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০১৯, ০২:১৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ৬, ২০১৯, ০২:৩২ পিএম

স্বৈরাচার এরশাদের বিদায়, সাহাবুদ্দীন আহমদের দায়িত্ব গ্রহণ

জাকির হোসেন  
স্বৈরাচার এরশাদের বিদায়, সাহাবুদ্দীন আহমদের দায়িত্ব গ্রহণ
এরশাদ ও প্রধান বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ

দেশব্যাপী ছাত্র-জনতার তীব্র আন্দোলনের মুখে সামরিক স্বৈরাচারী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ৪ ডিসেম্বর রাতে নাটকীয়ভাবে তিন জোটের রূপরেখা অনুযায়ী পদত্যাগের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন। তারই ধারাবাহিকতায় পরদিন (৫ ডিসেম্বর) সকল রাজনৈতিক দলের অনুরোধে বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ শর্তসাপেক্ষে অস্থায়ী রাষ্ট্রপতির পদ গ্রহণে সম্মতি জ্ঞাপন করেন।
 
৫ ডিসেম্বর তিন জোটের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দেয়া হয় যে, প্রধান বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ উপ-রাষ্ট্রপতির পদ গ্রহণ করে তারপর তিনি ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতির কাজ করবেন এবং তার অধীনেই একটি নির্দলীয় সরকার হবে। ৬ ডিসেম্বর বিকেল ৩টার দিকে তৎকালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট মওদুদ আহমদ পদত্যাগ করেন। মওদুদ আহমদ পদত্যাগ করার পরে বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন। এরপর প্রেসিডেন্ট এরশাদ নিজে পদত্যাগ করেন, আর  সাহাবুদ্দীন আহমদ ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব গ্রহণ করে গণতন্ত্রের নতুন যাত্রা শুরু করেন।

বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদের এই দায়িত্ব গ্রহণের মধ্যদিয়ে ৯০-এর ঐতিহাসিক গণআন্দোলনের পরিসমাপ্ত ঘটে। ফলে ২৭ নভেম্বর এরশাদের জারুরি আইন জারির প্রতিবাদের সাংবাদিকদের ধর্মঘটে ১০ দিন বন্ধ থাকার পর সারাদেশে এদিন থেকে সংবাদপত্র পুনর্প্রকাশিত হয়। 

১৯৯০ সালের এই দিনে ভয়েস অব আমেরিকা’র (ভোয়া) বাংলা বিভাগ  বাংলাদেশের সর্বশেষ অবস্থা বিষয়ে ভোয়া’র দক্ষিণ এশিয়া ব্যুরোর সংবাদদাতা পিটার হাইমলাইন-এর একটি  প্রতিবেদন সম্প্রচার করেন।

পিটার হাইমলাইন-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ বলেছেন, বর্তমান সংকট থেকে বাংলাদেশকে রাহুমুক্ত করতে হলে প্রয়োজন একটি নির্বাচন অনুষ্ঠান, যেটা হবে অবাধ এবং নির্ভরযোগ্য। গতকাল তিনটি প্রধান রাজনৈতিক দলের অনুরোধ রক্ষা করার পর সাংবাদিকদের কাছে তিনি এই মন্তব্য করেন। আগামী শনিবার বাংলাদেশ পার্লামেন্টের অধিবেশন আশা করা যাচ্ছে। বিচারপতি সাহাবুদ্দীন ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে অনুমোদন লাভ করবেন। এরপর প্রেসিডেন্টের পদত্যাগপত্র কার্যকর হলে জাস্টিস সাহাবুদ্দীন অস্থায়ী রাষ্ট্রপ্রধান হবেন। ’’

জেডএইচ/বিএস