• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২০, ০৮:০৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২০, ২০২০, ০৮:০৯ পিএম

আতিকের উদ্দেশে তাবিথ 

৯ মাসে পারেননি ৩ মাসে কী করতে পারবেন 

জাগরণ প্রতিবেদক
৯ মাসে পারেননি ৩ মাসে কী করতে পারবেন 
তাবিথ আউয়ালের গণসংযোগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ অন্যরা - ছবি : জাগরণ

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালের জন্য ভোট চাইলেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মিরপুরে গণসংযোগকালে তিনি বলেন, এই নির্বাচনকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। জনগণকে এ মুক্তি আন্দোলনে সম্পৃক্ত করতে আমরা নির্বাচনে এসেছি। 

সোমবার (২০ জানুয়ারি) ঢাকা উত্তর সিটিতে তাবিথ আউয়ালের পক্ষে গণসংযোগে নামেন বিএনপি মহাসচিসবসহ জাতীয় নেতারা। মির্জা ফখরুলের পর গণসংযোগে যুক্ত হন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদীন ফারুক, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। 

৩ মাসের মধ্যে যানজট নিরসন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও বর্তমানে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম। আতিকুলের এ বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তাবিথ আউয়াল বলেন, উনি ৯ মাস মেয়রের দায়িত্বে ছিলেন। ৯ মাসে যানজট নিরসন করতে দেখিনি, এখন ৩ মাসে কী করতে পারবেন, সেটার ব্যাখ্যা উনিই দিতে পারবেন।

গণসংযোগে মির্জা ফখরুলসহ জাতীয় নেতাদের আমগনকে কেন্দ্র করে মিরপুরের ৬ নম্বর বাজারের বিপরীত পাশে হাজার হাজার নেতা-কর্মী-সমর্থক ও সাধারণ জনগণ আগে থেকেই অপেক্ষা করছিলেন। বিএনপি মহাসচিব তাবিথ আউয়াল ও ওই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী দেলোয়ার হোসেনসহ (ঘুড়ি প্রতীক) বিপুলসংখ্যক কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উত্তর-পশ্চিম পাশ হয়ে আশপাশের এলাকায় লিফলেট বিতরণ করেন। প্রায় এক কিলোমিটার পায়ে হেঁটে প্রচার চালান মির্জা ফখরুল ইসলাম। 

তাবিথ আউয়াল মিরপুরের চেতনা মডেল একাডেমি হয়ে রূপনগর এলাকায় প্রচারণা চালান। তার সঙ্গে ৬, ৭ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী সৈয়দা মিলি জাকারিয়া চৌধুরীও (মোবাইল ফোন প্রতীক) নারীদের নিয়ে প্রচারে অংশ নেন। জনসংযোগ মিরপুরের রূপনগর আবাসিক এলাকায় পৌঁছলে যুক্ত হন জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার আমিনুল ইসলাম ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলরপ্রার্থী মাহফুজুর রহমান খান (ব্যাডমিন্টন প্রতীক) ও তার সমর্থকেরা। 

দুপুরের দিকে তাবিথ আউয়ালের গণসংযোগে যুক্ত হন আ স ম আবদুর রব, আবদুল মঈন খান, মোয়াজ্জেম  হোসেন আলাল। তারা ১১ সেকশনে সি ব্লকের ৩ নম্বর এভিনিউতে পথসভায় বক্তব্য রাখেন। 

আ স ম আবদুর রব ভোটারদের উদ্দেশে বলেন, সরকার এর আগেও ভোট চুরি করেছে, এখন আবার ইভিএমের মাধ্যমে ভোট চুরি করতে চাইছে। এবার ভোট চোরদের হাত কেটে দিতে হবে। আপনারা ভোট দিতে যাবেন, নিজের ভোট নিজে প্রয়োগ করবেন। 

আবদুল মঈন খান বলেন, বিনা ভোটে নয়, মানুষের ভোটে নির্বাচিত হতে চায় বিএনপি। আপনারা ১ ফেব্রুয়ারি ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন।

প্রচারকালে তাবিথ আউয়াল ৫ নং ওয়ার্ডে বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আনোয়ার হোসেনকে রেডিও মার্কা ও সংরক্ষিত আসনে মেহেরুন্নেসাকে আনারস মার্কায় ভোট দেয়ার আহ্বান জানান। 

এরপর ৭ নং ওয়ার্ডে পানির ট্যাংকি মোড়, হাজী রোড, শিয়ালবাড়ী রোড, ৬নং ওয়ার্ডে প্রশিকা শিয়ালবাড়ী মোড় থেকে শুরু হয়ে মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয় (রূপনগর শাখা), দুয়ারীপাড়া কাচাবাজার, মিরপুর শিল্পাঞ্চল প্রচার চালান তিনি। সেখান থেকে ৩ নং ওয়ার্ডে জুটপট্টি রোড, উদয়ন স্কুল রোড, ১১নং কাঁচাবাজার গণসংযোগ করে ভাসানী হোটেলের সামনে গিয়ে শেষ করেন। পরে ৫নং ওয়ার্ডের নাভানা টাওয়ার থেকে বাইশতলা, সাংবাদিক প্লট, কালশীরোড ও আধুনিক হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত গণসংযোগ করেন। এছাড়াও ২নং ওয়ার্ডের জাগরণী ক্লাব হয়ে কালশী মসজিদ, মুসলিম বাজার, এ ব্লক, ১২নং বিআরটিসি বাসডিপো পর্যন্ত নির্বাচনি প্রচার শেষ করেন ধানের শীষের প্রার্থী তাবিথ আউয়াল। 

আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় গাবতলীর পর্বত সিনেমা হলের সামনে থেকে গণসংযোগ শুরু হবে। বেলা ১১টায় কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে গণসংযোগ চলবে।

টিএস/ এফসি