• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২২, ২০২০, ০৯:৩০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২২, ২০২০, ০৯:৩০ পিএম

রাষ্ট্রপতির বক্তব্য ‘এক্সপাঞ্জ’ চান বিএনপির এমপি হারুন 

জাগরণ প্রতিবেদক
রাষ্ট্রপতির বক্তব্য ‘এক্সপাঞ্জ’ চান বিএনপির এমপি হারুন 

বছরের প্রথম সংসদে দেয়া রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের বক্তব্য অসত্য দাবি করে তা একপাঞ্জের (সংসদের কার্যপ্রণালী থেকে প্রত্যাহার) দাবি জানিয়ে বিএনপির এমপি হারুনুর রশীদ বলেছেন, রাষ্ট্রপতি তার ভাষণে বলেছেন সকল দলের অংশগ্রহণে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন হয়েছে। এটা ঠিক না। কথাটি সত্য নয়। নির্বাচন কমিশন নাকি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন করেছে, এটা একেবারেই অসত্য।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন।

হারুনুর রশীদ বলেন, ৫০ বছর পর এই তালিকা কি প্রয়োজন ছিল? মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাই এখন পর্যন্ত করতে পারেননি। রাজাকারের তালিকা ৫০ বছর পর করতে যেয়ে এখন বলছেন পাকিস্তান করেছে আবার বলছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করেছেন। এটা ঠিক না। এটা সরকারের কত বড় ব্যর্থতা?

রাজাকারের তালিকা নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের কি বেদনা, কি বিরূপ প্রতিক্রিয়া। মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী ক্ষমা চেয়েছেন, দুঃখ প্রকাশ করেছেন। এটি সৎ উদ্দেশ্যে যদি থাকতো তাহলে ৫০ বছর পর কি প্রয়োজন ছিল। মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাই এখন পর্যন্ত ঠিক করতে পারিনি।

তিনি বলেন, ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন হচ্ছে। বর্তমান সময়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যত সময় ঘনিয়ে আসছে সরকারের সন্ত্রাসী তৎপরতা আরও বেড়ে যাচ্ছে। তার প্রমাণ গত পরশুদিন তাবিথের ওপর হামলা। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাকে জবাবদিহিতামূলক করতে গেলে অবশ্যই অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের মধ্য দিয়ে নির্বাচিত প্রতিনিধির হাতে ক্ষমতা দিতে হবে।

রাষ্ট্রপতির ভাষণের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, রাষ্ট্রপতি ভাষণে ভেদাভেদ ভুলে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বানের বিষয়ে বলেন, বিরোধী দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াকে জেলে ঢুকিয়ে রাখবেন, উনি মৃত্যুপথযাত্রী, উনার জামিন দেবেন না। উনাকে সাজা দিয়ে দিনের পর দিন মাসের পর মাস আটক রাখবেন। বাংলাদেশে বিরোধী দলকে পুলিশ র‌্যাব দিয়ে পেটাবেন। এটা দিয়ে জাতীয় ঐক্য, শান্তি সমৃদ্ধি এগিয়ে যেতে পারে না।

এইচএস/ এমএইচবি