• ঢাকা
  • সোমবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২১, ৫ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: জানুয়ারি ৮, ২০২১, ০৮:১৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৮, ২০২১, ০৮:১৯ পিএম

স্পিচ থেরাপিস্ট নিয়োগে স্থগিতাদেশ দিল হাইকোর্ট

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
স্পিচ থেরাপিস্ট নিয়োগে স্থগিতাদেশ দিল হাইকোর্ট

এসএসসি পাশে স্পিচ থেরাপিস্ট নিয়োগে স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। স্পিচ থেরাপিস্টদের পেশাজীবী সংগঠন সোসাইটি অব স্পিচ অ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্টের (এসএসএলটি) আবেদনের প্রেক্ষিতে নিয়োগ কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ দেয়া হয়।

বিচারপতি মোঃ মজিবর রহমান মিয়াঁ ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীম এর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ রুল জারি করা হয়। রিটকারীদের পক্ষে শুনানী করেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে সচিব ও উপসচিবকে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

মামলার বিবরণীতে বলা হয়েছে, গত ২৬ অক্টোবর জারিকৃত স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে ঐ স্মারকে ১৪টি সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নাক, কান, গলা ও হেড নেক সার্জারি বিভাগের জন্য ক্যাডার বহির্ভূত পদে স্পিচ থেরাপিস্টের ন্যূনতম যোগ্যতা রাখা হয়েছে এসএসসি পাশ। অথচ বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিল আইন ২০১৮ তে প্রথম তফসিলে স্পষ্টভাবে বলা আছে যে স্পিচ ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্ট/স্পিচ থেরাপিস্ট হতে হলে ১ বছর বাধ্যতামূলক ইন্টার্নশিপসহ ৫ বছর মেয়াদী ব্যাচেলর অব সাইন্স ইন স্পিচ অ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপি কোর্সটি সম্পন্ন করতে হবে। আইনটির চতুর্থ তফসিলে উল্লেখ রয়েছে ব্যাচেলর অব সাইন্স ইন স্পিচ অ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপি কোর্সটি বাংলাদেশ হেলথ প্রফেশন্স ইন্সটিটিউটে (বিএইচপিআই) পরিচালিত হচ্ছে।

এই স্পিচ অ্যান্ড থেরাপি কোর্সটি বাংলাদেশে প্রথম ২০০৪ সালে বিএসপিআইতে শুরু হয় যা চিকিৎসা অনুষদের অধীনে পরিচালিত হয়ে আসছে।