• ঢাকা
  • শনিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১, ১২:৪৮ এএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১, ০৬:৪৮ পিএম

ক্যামেরার বাজার মন্দা

ক্যামেরার বাজার মন্দা
প্রতীকী ছবি

আশঙ্কাজনক হারে বিক্রি কমে গেছে ক্যামেরা এবং সরঞ্জামের। গত এক দশকের বৈশ্বিক বিক্রির পরিসংখ্যানও স্পষ্ট করছে এই প্রবণতা।

প্রায় তিন দশক আগে চোখে রঙিন স্বপ্ন আর রঙ তুলির আঁচড়ে গড়া ব্যাকড্রপে স্টুডিও সাজিয়ে ব্যবসা শুরু করেন খোরশেদ আলম। শুরুটাও ছিল দারুণ জমজমাট। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে মন্দা যাচ্ছে তার প্রতিষ্ঠানে। কারণ একটাই, মোবাইল ফোন। সহজে ছবি তোলা ও নানা মাধ্যমে তাৎক্ষণিক ব্যবহারের সুযোগ থাকায় মানুষের স্টুডিওতে যাওয়ার প্রয়োজন ফুরিয়েছে একেবারেই। ফলে খোরশেদ আলমের ব্যবসাও রঙিন থেকে হয়ে গেছে বিবর্ণ।

জীবিকার তাগিদে তাই তাকেও নির্ভর করতে হচ্ছে বিকল্প উৎসের ওপর।

প্রযুক্তির ছোঁয়ায় অ্যানালগ ক্যামেরা রূপ নিয়েছে ডিজিটালে। পেশাদার ও সৌখিন ফটোগ্রাফাররাও তা গ্রহণ করেছেন সানন্দে। কিন্তু তারপরও বেচাবিক্রি কমেছে মোবাইল ফোনের কারণে।

দেশীয় ব্যবসায়ীদের মতে, এই পরিবর্তনটা সবচেয়ে বেশি হয়েছে গত এক দশকে। 

ক্যামেরার জায়গাটা যে দখল করে নিচ্ছে মোবাইল ফোন তা স্পষ্ট বৈশ্বিক পরিসংখ্যানেও।

টোকিওভিত্তিক জরিপ সংস্থা CIPA-এর তথ্য বলছে, ২০১০ সালে পুরো বিশ্বে যেখানে ক্যামেরা বিক্রি হয়েছে ১২ কোটির ওপরে সেখানে ২০১৯-এ তা নেমে এসেছে মাত্র ৮৭ লাখে। অর্থাৎ বিক্রি কমেছে ৮৭ শতাংশ।

গবেষণা সংস্থা স্ট্যাটিস্টা বলছে, একই সময়ে বিক্রি হওয়া সাড়ে ২৯ কোটি মোবাইল ফোনের সংখ্যা উঠে গেছে প্রায় ১৩৮ কোটিতে।

CIPA এর তথ্য বলছে, ২০১৯ সালে বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল ক্যামেরার উৎপাদন ১৪ দশমিক আট ছয় মিলিয়ন থাকলেও বছর ব্যবধানে তা কমে দাঁড়ায় ৮ দশমিক সাত চার মিলয়নে।

জাগরণ/এসএসকে/এমএ