• ঢাকা
  • রবিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: এপ্রিল ২১, ২০১৯, ০৭:৩১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২২, ২০১৯, ০১:৩৮ এএম

ডিপিএল 

সাইফের ১১ ছক্কার রেকর্ড, আবাহনীর জয়

স্পোর্টস ডেস্ক
সাইফের ১১  ছক্কার রেকর্ড, আবাহনীর জয়

 

ডিপিএলের সুপার লীগের ম্যাচে লিজেন্ডস অফ রূপগঞ্জের বিপক্ষে ১০২ রানের বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে আবাহনী লিমিটেড। আরেক ম্যাচেবাংলাদেশের ঘরোয়া লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ১১টি ছক্কা হাঁকিয়ে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা এবং সৌম্য সরকারের সঙ্গে যৌথভাবে সর্বাধিক ছক্কা মারার রেকর্ড গড়ে দারুণ এক সেঞ্চুরি তুলে নেয়া সাইফ হাসানের ব্যাটিং তাণ্ডবে শেখ জামালকে ৭ উইকেটে হারিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর।  

রোববার (২১ এপ্রিল) বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নামা আবাহনী সৌম্য সরকারের ঝড়ো সেঞ্চুরির পর মোহাম্মদ মিঠুনের অপরাজিত ঝড়ো ফিফটির কল্যাণে ৭ উইকেটে ৩৭৭ রান করে, যা ডিপিএলের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বাধিক দলীয় স্কোর। 

নিজের স্বভাবজাত আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করা সৌম্য ৭৯ বলে ১৫টি চারের পাশাপাশি ২টি ছক্কা হাঁকিয়ে ১০৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে বুঝিয়ে দিলেন বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে নিজেকে মেলে ধরার জন্য তিনি প্রস্তুত আছেন। নাবিল সামাদের বলে সদ্য বিবাহিত মুমিনুল হকের হাতে ধরা পড়লে শেষ হয় সৌম্যর অসাধারণ এই ইনিংস। 

৩৯ বলে নিজের ফিফটি তুলে নেন সৌম্য, যা এবারের আসরে তার প্রথম ফিফটি। পরের ৫০ রান তুলেছেন আরও দ্রুত, মাত্র ৩২ বল। নাবিল সামাদের বলে ১ রান নিয়ে নিয়ে ৭১ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন পেরিস্কুপ শটের জনক সৌম্য।

পরে স্লগ ওভারে মোহাম্মদ মিঠুন ঝড় চলতে থাকে। ৩৪ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কার মারে ৬৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে তিনি আবাহনীকে রানের পাহাড়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করেন।

রূপগঞ্জের পক্ষে তাসকিন ২ উইকেট পেলেও ৫ ওভারে রান দিয়েছেন ৫৭! মোহাম্মদ শহীদ ৯ ওভারে ৬২ রান দিয়ে পান ২ উইকেট। 

বড় রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নামা রূপগঞ্জের পক্ষে ওপেনিং ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ নাইম একা তার নিজ দায়িত্ব পালন করে গেলেও বাকিদের ব্যর্থতার ফলে তাদের স্কোর দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ৮৬ রান। শেষের দিকের ব্যাটসম্যানদের কল্যাণে নাইম তুলে নেন নিজের সেঞ্চুরি এবং ১৩৫ বলে ১৩ চার ও ২ ছক্কার মারে ১২৩ রানে অপরাজিত থাকেন। মোহাম্মদ শহীদের ৫৩, ঋষি ধাওয়ানের ২৯ এবং তাসকিন আহমেদের অপরাজিত ২৫ রানের ইনিংসের কারণে ২৭৫ রানে থামে রূপগঞ্জ।

আরেক ম্যাচে সাইফ হাসানের ব্যাটিং তাণ্ডবে শেখ জামালকে উড়িয়ে দিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর। টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নামা শেখ জামাল ৪৯.৩ ওভারে ২৪৩ রানে অল আউট হয়ে যায়। জবাবে প্রাইম দোলেশ্বরের হয়ে ওপেনিং ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান ক্রিজে ঝড় তুলে ১১০ বলে ১০ চার ও ১১ ছক্কার মারে ১৪৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দলকে ৬৯ বল বাকি থাকতেই সহজ জয় পাইয়ে দেন।

আরেক ম্যাচে, প্রাইম ব্যাংককে ৭ উইকেটে হারিয়েছে মোহামেডান। টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে সাকলাইন সজীবের ৪ উইকেট ও সোহাগ গাজীর ৩ উইকেট শিকারের ফলে প্রাইম ব্যাংক   ৪২.২ ওভারে মাত্র ১৭৪ রানে অল আউট হয়ে যায়। জবাবে মোহামেডান আব্দুল মজিদ (৫৪) ও রাকিবুল হাসানের (৫২) ফিফটির সুবাদে ১৫ ওভার বাকি থাকতেই মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায়।    

আরআইএস 
 

Islami Bank
ASUS GLOBAL BRAND