• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬
Bongosoft Ltd.
প্রকাশিত: মে ২১, ২০১৯, ০১:০৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২১, ২০১৯, ০১:০৪ পিএম

ওয়েস্ট ইন্ডিজ চ্যাম্পিয়ন হবে : লারা

স্পোর্টস ডেস্ক
ওয়েস্ট ইন্ডিজ চ্যাম্পিয়ন হবে : লারা

দীর্ঘ ৩০ বছর পর আবারো ওয়ানডে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ- এমন আশাবাদের কথাই শুনিয়েছেন দলটির সাবেক ব্যাটসম্যান ব্রায়ান লারা। কিংবদন্তি এই ক্রিকেটারের মতে ক্যারিবীয়রা চমক দেখানোর সামর্থ্য রাখে।

ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে লারা বলেন, ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে রোমাঞ্চ ছড়ানো কিছু খেলোয়াড় আছে। তারা টি-২০ ফরম্যাটে ভালো করেছে। এবার ৫০ ওভারের ম্যাচে নিজেদের সামর্থ্য দেখানোর পালা। আমাদের ক্রিকেটাররা সেরা ফর্মে আছে। এখন তাদের ঠাণ্ডা মাথা রেখে নিজেদের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। খেলোয়াড়দের প্রথম লক্ষ্য হওয়া উচিৎ সেমিফাইনালে যাওয়া। 

তিনি বলেন, একটি দল টুর্নামেন্টে ম্যাচের পর ম্যাচ জিততে থাকলে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিতে পারে। শুধুমাত্র ব্যাটিং ও বোলিং ম্যাচ জেতাতে পারবে না। একটি ভারসাম্যপূর্ণ দল হওয়া জরুরি। এবারের বিশ্বকাপ প্রায় ৫০ দিনের টুর্নামেন্ট। তাই ধারাবাহিকতা রক্ষা করা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। কোনো দল হারার জন্য খেলবে না। তাই আমি ধারাবাহিকতা বজায় রাখার উপর গুরুত্বারোপ করছি। 

দলের অভ্যন্তরীণ সমস্যা থাকলেও এ বিষয়ে ক্রিকেটারদের প্রতি লারার পরামর্শ, সবাইকে মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে এবং একে অন্যের সঙ্গে আঠার মতো লেগে থাকতে হবে। কারণ তারা দল হিসেবে একসঙ্গে দীর্ঘ সময় ধরে খেলেনি। আমার উপদেশ থাকবে তারা ইংল্যান্ডের মাটিতে পা দেয়ার পরপরই যেন আবহাওয়ার সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। 

বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য হতে না পারার আক্ষেপ মোটেও লুকাননি ক্রিকেটের বরপুত্র। তিনি বলেন, বিশ্বকাপ আসলে বিষয়টি আমাকে কষ্ট দেয়। আমার বয়স ৫০ ছাড়িয়েছে। এখন আমি তা পারবো না। কিন্তু আমাদের মেনে নেয়া উচিৎ ওই সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজ শক্তিশালী দল ছিল না। আমরা নিজেদের সেরাটা দিয়েই চেষ্টা করেছি। আমরা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতলেও বিশ্বকাপ জিততে পারিনি।

ক্লাইভ লয়েডের নেতৃত্বে দুইবার বিশ্বকাপ জয়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে লারার সাফ কথা, ওই সময় দল সাফল্যের চূড়ায় অবস্থান করছিল। ১৯৮৩ সালে তারা ফাইনালও খেলেছিল। তাতেই বোঝা যায় আমাদের দল তৎকালীন সময়ে কতটা শক্তিশালী ছিল। তাদের শক্তিশালী বোলিং লাইনআপ এবং খাঁটি ব্যাটিং ডিপার্টমেন্ট ছিল।

তিনবার ফাইনালে উঠলেও শিরোপা ট্রফি ছুঁয়ে দেখা হয়নি ইংল্যান্ডের। এ বিষয়ে লারা বলেন, আমি জানি না তারা ফেভারিট কি না তবে তারা ট্রফি জয়ের দাবিদার। যেকোনো খেলায় স্বাগতিক দল চ্যাম্পিয়ন হতে চায়। ইংল্যান্ড কখনো তা পারেনি। সত্যি বলতে এবার তারা সেরাটা দিয়েই চেষ্টা করবে যা আগে কখনো তারা করেনি। পেছনে ফিরে তাকালে দেখা যায় ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভালো করলেও ট্রফি জেতেনি। তবে এবার সেই বৃত্ত থেকে তারা বেরিয়ে আসতে পারে। তাদের চমৎকার কিছু ক্রিকেটার আছে। সম্প্রতি তারা অনেক সুসংগঠিত হয়েছে।

ভারতীয় দল সম্পর্কে লারার অভিমত, ভারত চ্যাম্পিয়ন হলে কেউ অবাক হবে না। তারা ভিন্ন কন্ডিশনে ভালো খেলে। তাদের ভারসাম্যপূর্ণ দল আছে। কোনো সন্দেহ নেই ভারত খুবই শক্তিশালী দল। তাদের বিশ্বকাপ জেতা মোটেও অঘটন হবে না।

অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে লারা সমীহ করে বলেন, ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথ ফিরে আশায় তাদের দল অনেক শক্তিশালী হয়েছে। আমাদের সময়ে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপে অনেক দাপট দেখিয়েছে। তবে বর্তমান দলটি ১৯৯৯ এবং ২০০৩ এর মতো শক্তিশালী দল নয়। তবে ভুলে যাবেন না তারা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। তারা অবশ্যই উপলক্ষকে বড় করার চেষ্টা থাকবে।

আরআইএস 

Space for Advertisement