• ঢাকা
  • সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০১৯, ০৩:২০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২, ২০১৯, ০৩:২০ পিএম

দুই বার ব্যাট করেও অজিদের রান পাহাড় টপকাতে পারেনি পাকিস্তান

ক্রীড়া ডেস্ক
দুই বার ব্যাট করেও অজিদের রান পাহাড় টপকাতে পারেনি পাকিস্তান
ছবি : ইএসপিএন

শঙ্কাটা জন্ম নিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসের পরেই। তাই সত্যি হয়েছে। চতুর্থ দিনের শুরুতেই পাকিস্তান হেরেছে ইনিংস ও ৪৮ রানের ব্যবধানে। আগের ম্যাচেও একই রকম লজ্জায় পড়েছিল তারা। তবে আফসোসে পুড়তে পারেন অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। প্রায় দুই দিন বাকি থাকতেই ম্যাচ শেষ হয়ে যাওয়ায় এখন হয়তো ভাবতেই পারেন আরেকটু ব্যাটিং করে লারার রেকর্ডটা ভেঙে দেয়ার চেষ্টা করাই যেত। 

অ্যাডিলেড ওভালে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে নেমেছিল অস্ট্রেলিয়া। টস জিতে ব্যাটিং করতে নামে অজিরা। ইনিংস উদ্বোধনে এসে রান পাহাড়ে চড়ার মই হয়ে উঠেন ওয়ার্নার। ৩৯ চার আর ১ ছক্কায় খেলেন অপরাজিত ৩৩৫ রানের মহাকাব্যিক এক ইনিংস। 

তার সঙ্গে সেঞ্চুরি তুলে নেন আরেক ব্যাটসম্যান মার্নাস লাবুশানেও। ২২ চারে তিনি করেন ১৬২ রান। ৩ উইকেটে ৫৮৯ রান করে ইনিংস ঘোষণা করেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক টিম পেইন। যদিও তার সেই সিদ্ধান্ত পড়ে সমালোচনার মুখে, আরও কিছুক্ষণ সময় পেলে ৩৩৫ রানে অপরাজিত থাকা ওয়ার্নার পেরিয়ে যেতে পারতে পারতন লারাকে এমনটাই বিশ্বাস অনেকের। 

নিজেদের প্রথম ইনিংসে খেলতে নেমে একেবারেই খেই হারিয়ে ফেলে পাকিস্তান। বাবর আজমের ৯৭ ও আট নম্বরে খেলতে নেমে সেঞ্চুরি হাঁকানো ইয়াসিরের ১১৩ রান ছাড়া কেউ তেমন প্রতিরোধ গড়তে পারেননি। ৩০২ রান করলেও ফলো অন এড়াতে পারেনি পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ৬ উইকেট পান মিচেল স্টার্ক। 

ফলো অনে পড়ে ব্যাটিংয়ে নেমে অবস্থা আরও করুন হয়ে যায় পাকিস্তানের। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৮ রান করেন উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শান মাসুদ। এছাড়া ফিফটি ছাড়িয়েছেন কেবল একজন, ৫৭ রান করে নাথায় লায়নের শিকার হন আসাদ শফিক। পাকিস্তানও থামে ২৩৯ রানে। এই ইনিংসে অজিদের পক্ষে ৫ উইকেট পান স্পিনার লায়ন। 

এমএইচবি

আরও পড়ুন