• ঢাকা
  • সোমবার, ২০ জানুয়ারি, ২০২০, ৭ মাঘ ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৩, ২০২০, ০৪:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১৩, ২০২০, ০৪:০৮ পিএম

শাদাব ঝড় ও মাশরাফীর যোগ্য সঙ্গে ঢাকার ফাইটিং স্কোর

ক্রীড়া ডেস্ক
শাদাব ঝড় ও মাশরাফীর যোগ্য সঙ্গে ঢাকার ফাইটিং স্কোর

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) এলিমিনেটর ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বোলারদের সম্মিলিত আক্রমণে শুরুতে দিশেহারা হয়ে পড়ে ঢাকা প্লাটুন। শেষ দিকে সাদাব খানের ঝড় ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ওভারে লড়াইয়ের পুঁজি পায় মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার ঢাকা।  

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে মিরপুরে শুরু হওয়া ম্যাচে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রান সংগ্রহ করেছে ঢাকা। 

ইনিংসের শুরুটা ভালোমতো করতে পারেননি ঢাকার ব্যাটসম্যানরা। রুবেল হোসেনের দ্বিতীয় ওভারে মাত্র ৩ রান করে বোল্ড হয়ে ফিরে যান ওপেনার তামিম ইকবাল।তামিমের বিদায়ের পর শূন্য রানে বিদায় নেন এনামুল হক বিজয় ও লুইস রেইস। বিজয়কে ফেরান নাসুম আহমেদ, রিসকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ওপেনার মুমিনুলকে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হন মাত্র ৭ রান করা মেহেদী হাসান।

৩১ বলে ৩১ রানে মুমিনুলের বিদায়ের আগে কোনো রান না করেই ফেরেন জাকের আলী। এরপর দলীয় ৫২ রানে ফিরে যান ওপেনার মুমিনুল। শ্রীলঙ্কান থিসারা পেরেরা ঝড় তোলেন। ১৩ বলে ২৫ রান করে রুবেলের বলে জিয়াউর রহমানের হাতে তিনি তালুবন্দি হন। ১০৪ রানে পেরেরার বিদায়ের পর চট্টগ্রামের বোলারদের শাসন করেন পাকিস্তানের সাদাব খান। ৪১ বলে ৬৪ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন এই অলরাউন্ডার। এই ইনিংসে ১৪টি সেলাই ও হাতে ব্যান্ডেজ বেঁধে মাঠে নেমেছেন মাশরাফী। ব্যাট হাতে তিনি ২ বল খেললেও রান করতে না পারলেও তিনি শাদাবকে যোগ্য সঙ্গ দেন।  

চট্টগ্রামের হয়ে রায়াদ এমরিট নেন সর্বোচ্চ ৩ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন রুবেল হোসেন ও নাসুম আহমেদ।

আরআইএস