• ঢাকা
  • শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা

মুজিববর্ষ
প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৪, ২০২০, ০৬:৪০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ২৪, ২০২০, ০৬:৪০ পিএম

টাইগারদের আক্ষেপের হার 

ক্রীড়া ডেস্ক
টাইগারদের আক্ষেপের হার 

উদ্বোধনী জুটিতে সাবধানী সূচনা করেন অভিজ্ঞ তামিম ইকবাল এবং তরুণ মোহাম্মদ নাঈম শেখ। তবে দুই রান আউট এবং প্রয়োজনীয় সময়ে ব্যাটসম্যানদের হাত খুলে খেলতে না পারার খেসারত দিয়ে বড় স্কোর পায়নি টাইগাররা। যার ফলে লাহোরে ৩ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। 

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায় গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে শুরু হওয়া ম্যাচে বাংলাদেশের নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪১ রান করেছে। লাহোর গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে এটাই সর্বনিম্ন স্কোরের নতুন রেকর্ড গড়েছে। জবাবে পাকিস্তান মাত্র ৩ বল বাকি থাকতে জয় নিশ্চিত করে। তাই আর অল্প কিছু রান করতে না পারার বেদনা নিয়েই টাইগারদের মাঠ ছাড়তে হয়। 

তামিম ও নাঈম শুরু থেকে দেখে শুনে ব্যাট করতে থাকেন। ১১ ওভারে এই জুটি দলের হয়ে ৭১ রান যোগ করেন। ৩৪ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কার মারে ৩৪ রান করা তামিম রান আউট হলে এই জুটি ভাঙে। 

দলীয় ৯৮ রানের মাথায় শাদাব খানের থ্রোতে ১২ রান করা লিটন রান আউট হন। সেই ধাক্কা সামলানোর আগে ৪১ বলে ৩ চার ও ২ ছক্কার মারে ৪৩ রান করে নাঈম বিদায় নেন শাদাবের বলে ইফতিখার আলমের হাতে ধরা পড়েন।    

এরপর সময়ের দাবি মেটাতে ব্যর্থ আফিফ হোসেন ধ্রুব ১০ বলে ৯ রান করে অভিষিক্ত পেসার হারিস রউফের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন। ক্রিজে গিয়েই বাউন্ডারি হাঁকানো সৌম্য সরকার যেতে পারেননি বেশি দূর। ৫ বলে ৭ রান করে শাহিন শাহ আফ্রিদির কাটারে বোল্ড হয়ে তিনি প্যাভিলিয়নে ফেরেন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১৯ এবং মোহাম্মদ মিঠুন ৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।  

শফিউল ইসলামের করা প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে লিটন দাসের গ্লাভসে ধরা পড়ে আউট হন পাক অধিনায়ক বাবর আজম। এ সময় স্বাগতিকরা স্কোরবোর্ডে রানের খাতাই খুলতে পারেনি। 

পঞ্চম ওভারের শেষ বলে মুস্তাফিজের শর্ট লেন্থে করেছিলেন। বল লেগ স্টাম্প দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় ১৭ রান করা মোহাম্মদ হাফিফ শট খেলতে গেলে বল তার ব্যাটের কানায় লেগে শর্ট এক্সট্রা কভারে দাঁড়িয়ে থাকা আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের হাতে ধরা পড়েন। 

তৃতীয় উইকেট জুটিতে আহসান আলী এবং শোয়েব মালিক ৪৬ রানের জুটি গড়ে শুরুর ধাক্কা সামলে নেন। ১২তম ওভারে বিপ্লবের বলে দ্বাদশ খেলোয়াড় নাজমুল হোসেন শান্তর হাতে ধরা পড়ে ফেরেন ৩৬ রান করা আহসান আলী।

শফিউলের বলে ১৬ রান করা ইফতিখার প্যাভিলিয়নের পথ ধরলেও তা পাকিস্তানের জয়ে তেমন কোনো প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারেনি। ২ ওভারে যখন জয়ের জন্য পাকিস্তানের দরকার ৯ রান, তখন ইমাদ ওয়াসিমকে বোল্ড করেন আল আমিন হোসেন। যদিও ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে যায়। 

নিজের হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে ফিনিশিংয়ের কাজটা সেরেছেন শোয়েব মালিক। ৪৫ বলে ৫ চারের মারে তিনি ৫৮ রান করেন। ব্যক্তিগত ৪৭ রানে তিনি মুস্তাফিজের বলে লং অফে ক্যাচ দিলেও নাজমুল হোসেন শান্ত অনেকটা দৌড়ে ঝাঁপিয়ে ক্যাচ মুঠোয় জমিয়েছিলেনও। কিন্তু মাটিতে পড়ার পর হাত থেকে ছুটে যায় বল, স্পর্শ করে সীমানা দড়ি।

বাংলাদেশের পক্ষে শফিউল ৪ ওভারে ২৭ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। মুস্তাফিজ ১ উইকেট পেলেও ৪ ওভারে তার খরচ ৪০ রান। ২৮ রান দিয়ে একটি উইকেট পান আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। 

আরআইএস