• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল, ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০, ০১:২৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০, ০১:২৪ পিএম

বর্ষসেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের পুরস্কার পেলেন মেসি

ক্রীড়া ডেস্ক
বর্ষসেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের পুরস্কার পেলেন মেসি

ফুটবল পায়ে তার জাদুতে তিনি মুগ্ধ করে চলেন সবসময়। গোল করে ও করিয়ে দলকে অসংখ্য শিরোপা জিতেয়েছেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি লিওনেল মেসি। নিজেও পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার। তবে এবার প্রথমবারের মতো এক পুরস্কার পেলেন মেসি, তিনি কেন এর আগে কোন ফুটবলারই পাননি এই পুরস্কার।

প্রথম ফুটবলার হিসেবে লরিয়াস বর্ষসেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন লিওনেল মেসি। তবে পুরস্কারটা তাকে ভাগ করে নিতে হয়েছে ফর্মুলা ওয়ানের কিংবদন্তি লুইস হ্যামিল্টনের সঙ্গে। দুজনেই সমান ভোট পেয়ে এই স্বীকৃতি অর্জন করেছেন। পুরস্কারের ইতিহাসে এই প্রথম বর্ষসেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের পুরস্কার ভাগাভাগি করে নেওয়ার ঘটনা ঘটল। একই রাতে জনতার ভোটে পুরস্কৃত হয়েছেন ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারও।


এর আগে আরও পাঁচবার মনোনয়ন পেলেও ২০তম আসরে এসে সাফল্য ধরা দিল মেসির হাতে। এই পুরস্কার বিজয়ের পথে তিনি পেছনে ফেলেছেন রাফায়েল নাদাল, মার্ক মার্কুইজ, গলফার টাইগার উডসের মতো ক্রীড়া তারকাদের। গত বছর এই পুরস্কার ঘরে তুলেছিলেন টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ।

২০১৯ সালের প্রায় সব সেরা পুরস্কার হাতে তুলেছেন মেসি। গোল্ডেন শু, ষষ্ঠ ব্যালন ডি’অর, ফিফার বর্ষসেরাসহ অসংখ্য পুরস্কারের ঝুলিতে শেষ সংযোজন লরিয়াসের এই পুরস্কার। ক্রীড়া গ্রেটদের ভোটেই সেরা ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব নির্বাচিত করা হয়।

বর্ষসেরা নারী ক্রীড়াবিদ হয়েছেন মার্কিন জিমন্যাস্ট সিমোনা বাইলস। আর লিভারপুল এবং মার্কিন নারী ফুটবল দলকে হারিয়ে বিশ্বসেরা দল নির্বাচিত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা রাগবি দল।

এদিকে একই রাতে ইতিহাস গড়েছেন শচীনও। সব ক্যাটাগরির মাঝে একটি পুরস্কারই কেবল সাধারণ মানুষের ভোটে নির্ধারিত হয়েছে। সেটিই পেয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার।  ইতিহাসের সাক্ষী হতে পুরস্কার গ্রহণ করতে বার্লিনে উড়াল দিয়েছিলেন টেন্ডুলকার। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন বিশ্বকাপজয়ী অজি অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ। 

তবে ছুটিতে থাকায় পুরস্কারের মঞ্চে হাজির হতে পারেননি মেসি। ভিডিও বার্তার মাধ্যমে ‘দলীয় খেলা থেকে প্রথম’ লরিয়াস বর্ষসেরার পুরস্কার জেতার আনন্দ সবার সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

এমএইচবি