• ঢাকা
  • রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০, ১২:৩৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০, ১২:৩৮ পিএম

হরিণের চামড়ায় আসীন সৌম্য, হতে পারে জেল

ক্রীড়া ডেস্ক
হরিণের চামড়ায় আসীন সৌম্য, হতে পারে জেল
আশীর্বাদ অনুষ্ঠানে হরিণের চামড়ার ওপর বসে আইনি ঝামেলার মুখে সৌম্য সরকার। ফটো : সময় টিভি

বিয়ের আশীর্বাদে হরিণের চামড়ার আসন বানিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার সৌম্য সরকার। বিষয়টি নিয়ে তিনি আইনি ঝামেলায় পড়ে যেতে পারেন। বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিট জানিয়েছে, অপরাধ প্রমাণিত হলে সৌম্যর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আগামী বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন সৌম্য। এর আগে গত ২১ ফেব্রুয়ারি তার আশীর্বাদ সম্পন্ন হয়। আশীর্বাদ অনুষ্ঠানে তাকে এবং তার পরিবারের সদস্যদের এক একটি হরিণের চামড়ার ওপর বসে এবং দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় কয়েকটি ছবি প্রকাশ হয়। এ নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। 

সাতক্ষীরায় বেশ কয়েকজন সংবাদমাধ্যমকর্মী জানিয়েছেন, তারা সৌম্য সরকারের বাড়ির দেয়ালে হরিণের একটি মাথাও ঝুলন্ত অবস্থায় দেখেছেন। বিষয়গুলো সামনে আসার পর সৌম্য সরকারকে নিয়ে ফেসবুকে বিরূপ মন্তব্য করেন তার ভক্তরা। কেউ কেউ এটাকে বাড়াবাড়ি বলেও উল্লেখ করছেন।

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের ধারা ৬ অনুযায়ী, লাইসেন্স ও অনুমতিপ্রাপ্ত ব্যক্তি ব্যতীত অন্য কারোর কাছে কোনো বন্যপ্রাণী, বন্যপ্রাণীর অংশ পাওয়া যায় অথবা তা থেকে উৎপন্ন দ্রব্য ক্রয়, বিক্রয়, আমদানি-রফতানি করেন আর যদি অপরাধ প্রমাণিত হয় তাহলে সর্বোচ্চ ১ বছরের সাজা অথবা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা হতে পারে। একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটলে ৩ বছরের সাজা অথবা সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা জরিমানা।

সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমরা জানতে পেরেছি ওই চামড়া পূর্বপুরুষদের হাতবদল হয়ে তাদের কাছে এসেছে। বিয়ের আশীর্বাদে এভাবে চামড়ার ব্যবহার তাদের পারিবারিক ঐতিহ্য। এই চামড়াটাও অনেক পুরনো। তারপরেও জাতীয় পর্যায়ের একজন খেলোয়াড় হিসেবে এটা করা তাদের উচিত হয়নি।

হরিণের চামড়া ইস্যুতে শক্ত অবস্থানে বন বিভাগ এ বিষয়ে কোনো প্রকার ছাড় দিতে নারাজ। বন বিভাগের বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের পরিচালক এস এম জহির উদ্দিন আকন জানান, তথ্য পেয়ে এরইমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে বন বিভাগ। প্রাথমিক কিছু তথ্যও পাওয়া গেছে। দোষী প্রমাণিত হলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সৌম্য সরকারের অপরাধ যদি সত্যি হয়- তাহলে তাকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা উচিত বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন। তারা উদাহরণ হিসেবে ভারতে সালমান খান, আর্জেন্টিনায় ম্যারাডোনাকে সামনে নিয়ে আসছেন। কারণ তারা এ ধরনের অপরাধে জেল খেটেছেন।

সূত্র : সময় টিভি 

আরআইএস/ এফসি

আরও পড়ুন