• ঢাকা
  • রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০, ০২:০৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০, ০২:০৯ পিএম

ভারতীয় যুবাদের আচরণে ক্ষুব্ধ শচীনও

ক্রীড়া ডেস্ক
ভারতীয় যুবাদের আচরণে ক্ষুব্ধ শচীনও

প্রথমবার বিশ্বজয় করেছে বাংলাদেশের যুবারা। সপ্তাহ তিনেক আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়নের তকমা গায়ে লাগে টাইগারদের। তবে ওই আসরের ফাইনাল ম্যাচের শেষে ঘটে এক অপ্রীতিকর ঘটনা। বিবাদে জড়ান দুই দলের ক্রিকেটাররা। 

শেষ পর্যন্ত যা গড়ায় হাতাহাতিতে। ম্যাচের একেবারে শুরু থেকেই দুই দলের ক্রিকেটারদের উত্তেজিত দেখা যায়। কিন্তু সবকিছুর মাত্রা ছাড়িয়ে যায় ম্যাচ শেষে শিরোপা উদযাপনের সময়। বাংলাদেশ দল যখন পতাকা হাতে উদযাপনে ব্যস্ত, তখন হুট করেই দেখা যায় একটা জটলার মধ্যে প্রায় হাতাহাতির অবস্থা দুই দেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে। কোচিং স্টাফদের মধ্যস্থতায় থামে সে দফার ঝগড়া।

এর খানিক পরই দেখা যায়, বাংলাদেশের পতাকা টানছেন ভারতের জার্সি পরা এক খেলোয়াড়। মূলত উদযাপনরত খেলোয়াড়দের কাছ থেকে পতাকা ছিনিয়ে নেয়াই ছিল উদ্দেশ্য। সে ঘটনা টিভি স্ক্রিনে ধরা পড়তেই সরিয়ে নেয়া হয় ক্যামেরা। তখন যে ঘটেছিল আপত্তিকর কিছু- সে বিষয়ে আর সন্দেহ থাকে না কারোরওই।

এ ঘটনার তদন্ত করে শাস্তি দেয়া হয় দুই দলের পাঁচ ক্রিকেটারকে। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের তিন ক্রিকেটার তৌহিদ হৃদয় (১০ ম্যাচ নিষিদ্ধ), শামীম হোসেন (৮ ম্যাচ নিষিদ্ধ) এবং রকিবুল হাসান (৪ ম্যাচ নিষিদ্ধ) এবং ভারতের দুই ক্রিকেটারের মধ্যে আকাশ সিং নিষিদ্ধ হয়েছেন ৬ ম্যাচ আর লেগস্পিনার রবি বিষ্ণুইকে নিষিদ্ধ করা হয় ৫ ম্যাচের জন্য।

ভারতীয় যুবাদের এমন আচরণে ক্ষুব্ধ ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমরা হয়তো কাউকে শেখানোর চেষ্টা করতে পারি। কিন্তু যাকে শেখানো হচ্ছে, তার আদৌ শেখার ইচ্ছে আছে কি না- সেটা তার ওপরই নির্ভর করে। এসব কঠিন মুহূর্তে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। সবসময় মাথায় রাখতে হবে, সবাই দেখছে তোমাকে, সারা বিশ্বের চোখ তোমার ওপর। খেলার মাঠে আগ্রাসী হওয়া স্বাভাবিক, তবে সেটার জন্য খারাপ ভাষা প্রয়োগ করার প্রয়োজন দেখি না।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আগ্রাসী হতে হবে, তবে সেটা নিজের খেলায়। তোমার ব্যাটিং কিংবা বোলিংয়ের আগ্রাসী মনোভাব দলকে সাহায্য করবে। এর বাইরে সবকিছুই দলের বিপক্ষে যাবে। সবসময় খেয়াল রাখতে হবে, আগ্রাসন দেখাতে গিয়ে যেন দলের অসম্মান না হয়। সবাই ম্যাচ জিততে চায়। রজার ফেদেরার কি জিততে চায় না? ও কি আগ্রাসী নয়? প্রতিটি পয়েন্ট জিততে মরিয়া থাকে সে। কিন্তু সেটার জন্য সে কাউকে অসম্মান তো করে না।’

এমএইচবি