• ঢাকা
  • বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০, ০৪:১৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০, ০৪:১৯ পিএম

সৌম্যর বিয়েতে ৭টি মোবাইল চুরি

ক্রীড়া ডেস্ক
সৌম্যর বিয়েতে ৭টি মোবাইল চুরি
মোবাইল ফোন চুরিকে কেন্দ্র সৌম্যর বিয়েতে হট্টগোল। পরে দু্ই চোরকে পিটুনি দেয়া হয় ● সংগৃহীত

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ক্রিকেটার সৌম্য সরকারের। তার বিয়ের অনুষ্ঠানে মোবাইল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে সৌম্যের বড় ভাইসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। 

বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে খুলনা ক্লাবে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। 

সৌম্যর বাবা কিশোরী মোহন সরকার, বরযাত্রী দ্বীনবন্ধু মিত্র ও সৌম্যর বন্ধু অলিসহ তার স্বজনদের সাতটি মোবাইল চুরি হয়। এ সময় সৌম্যর মেজো ভাই ইনকাম ট্যাক্সের ডেপুটি কমিশনার প্রণব কুমার সরকার খুলনা ক্লাবের কর্মচারীদের মোবাইল চুরির বিষয়ে অবহিত করে পরে চোর শনাক্ত করতে যান। 

চোরের পক্ষ হয়ে ক্লাবের কয়েকজন কর্মচারী ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন। প্রণব ও অলিদের ওপর ক্লাবের কর্মচারীরা দফায় দফায় হামলা চালান। এতে তারা আহত হন। প্রায় আধাঘণ্টা থমকে থাকে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। তখন সাত পাকে ঘুরছিলেন বর সৌম্য। যে কারণে তিনি উঠে আসতে পারেননি।

সৌম্য সরকারের মামা স্বদেশ কুমার সরকার জানান, ভিড়ের মধ্যে গেট থেকে ঢোকার সময় দ্বীনবন্ধু মিত্রের মোবাইল চুরি হয়ে যায়। এরপর সৌম্যর বাবা, বন্ধু অলিসহ বর যাত্রীদের আরও ছয়টি মোবাইল চুরি হয়। চোরদের হাতে নাতে ধরে ফেললে খুলনা ক্লাবের কর্মচারীরা আমাদের ওপর চড়াও হয়। এ ঘটনাটি খুলনা ক্লাব কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ প্রথমেই আমলে নিলে বরযাত্রীতে এসে সৌম্যের স্বজনদের মার খেতে হতো না।

ঘটনার পর খুলনা ক্লাবে বিপুলসংখক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যকে অবস্থান নিতে দেখা গেছে। পরে পুলিশ ও ক্লাব কর্তৃপক্ষের ঊর্ধ্বতন লোকজন সৌম্যের অভিভাবকদের সাথে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন।ডিবিসি।

আরআইএস/এসএমএম