• ঢাকা
  • শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০, ০৫:১৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০, ০৫:১৮ পিএম

অবিস্মরণীয় টাই টেস্টের নায়ক ছিলেন ডিন জোন্স

ক্রীড়া ডেস্ক
অবিস্মরণীয় টাই টেস্টের নায়ক ছিলেন ডিন জোন্স

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চলমান আইপিএলে স্টার স্পোর্টসে আইপিএলের ধারাভাষ্যকার হিসেবে যোগ দেয়া অস্ট্রেলিয়ার সাবেক তারকা ক্রিকেটার এবং ধারাভাষ্যকার ডিন জোন্সের মৃত্যুতে শোকের সাগরে ভাসছে ক্রিকেটাঙ্গন।  মুম্বাইয়ের একটি সাত তারকা হোটেলে বায়ো-বাবল প্রটোকলে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

যেই ভারতের মাটিতে ডিন জোন্স শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন সেখানেই তিনি টেস্টে নিজের ক্যারিয়ারের চিরস্মরণীয় ইনিংস খেলেছিলেন। ১৯৮৪ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেকে ৪৮ রান করেন তিনি। এর ২ বছর পরে মাদ্রাজে (বর্তমানে চেন্নাই) ঐতিহাসিক টাই টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংসে ২১০ রানের অতি ধৈর্যশীল ইনিংস খেলে করে বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন জোন্স।

অবিস্মরণীয় সেই টাই টেস্টে ডিন জোন্সের ২১০ রান ছিল তৎকালীন সময়ে ভারতের মাটিতে কোনো অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানের সর্বাধিক রানের ইনিংস। ৫০৩ মিনিট (৮ ঘন্টা ৩ মিনিট) ক্রিজে থেকে ৩৩০ বল খেলে ২৭ বাউন্ডারি এবং ২ ছক্কার মারে জোন্স এই ইনিংস খেলেছিলেন। শুধুমাত্র ধৈর্যশীল ব্যাটিং করার মাঝেই জোন্সের এই ইনিংসের মাহাত্ত বোঝানো যাবে না। অসহ্য গরমে ব্যাট করতে করতে মাঠেই বমি করেছেন। টেস্ট চলাকালীন তাকে হাসপাতালেও যেতে হয়েছিল। এতো অসুস্থতার মাঝেও ডিন জোন্সের এমন টেস্টসুলভ ব্যাটিং করতে পারার ঘটনাটি বেশ চমকপ্রদ। ওই টাই টেস্টে ব্যাট করার সময় অসুস্থ জোন্সকে অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যালান বর্ডার বলেছিলেন, তুমি না পারলে কঠিন মানসিকতার কোনো কুইন্সল্যান্ডের ক্রিকেটারকে নামাতে হবে দেখছি। এই কথা শুনে রীতিমতো তেতে ওঠেন জোন্স। বাকিটা ইতিহাস। টাই টেস্টে তিনিই হয়েছিলেন ম্যাচ সেরা। 

খেলোয়াড়ি জীবনে ডিন জোন্সের মেন্টর হিসেবে পরিচিত ছিলেন তার সতীর্থ অ্যালান বর্ডার। জোন্সের মৃত্যু স্বাভাবিকভাবেই বেদনাহত করেছে।  বর্ডার বলেছেন, টেস্ট পর্যায়েও দারুণ ছিল ডিনো। কিন্তু ওয়ানডেতে যে আগ্রাসী ক্রিকেটটা ও খেলতো, তার জন্য ওকে সবাই মনে রাখবে। খেলাটায় বিপ্লব এনে দিয়েছিল।

টাই টেস্টের প্রতিদ্বন্দ্বী এবং পরে ডিন জোন্সের সঙ্গে ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ করা ভারতের হেড কোচ রবি শাস্ত্রী গভীর শোক প্রকাশ করে টুইটারে লিখেছেন, একজন সহকর্মী এবং বন্ধুকে হারালাম। অল্প বয়সে চলে গেল জোন্স।

দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি লীগে কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ১৯৬১ সালের ২৪ মার্চ ভিক্টোরিয়ার মেলবোর্নে জন্ম নেয়া এই অজি ক্রিকেটার ৫২  টেস্টের ক্যারিয়ারে ৪৬.৫৫ গড়ে করেছিলেন ৩ হাজার ৬৩১ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে  ২১৬ রানের ইনিংসটি সাদা পোশাকে তার ক্যারিয়ার সেরা। অ্যালান বর্ডারের দলের হয়ে খেলা ডিন জোন্সের আছে ১১টি শতকও। এছাড়া ১৬৪টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন জোন্স। একদিনের ম্যাচেও তার ক্যারিয়ার বেশ সমৃদ্ধ। ৭টি শতক ও ৪৬টি অর্ধশতক মিলে ৪৪.৬১ গড়ে করেছিলেন ৬ হাজার ৬৮ রান।

এসইউ