• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০২১, ৮ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২০, ১২:০১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ২, ২০২০, ১২:০১ পিএম

শাখতারে ভূপাতিত রিয়াল

ক্রীড়া ডেস্ক
শাখতারে ভূপাতিত রিয়াল
শাখতার দোনেস্কের গোল উদযাপন। ফটো: মার্কা

ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার দোনেস্কের বিপক্ষে ২-০ গোলে হেরে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়ার শঙ্কায় পড়েছে আসরে ১৩ বার শিরোপা জেতা রিয়াল মাদ্রিদ। 

গত অক্টোবরে ইনজুরি আর অসুস্থতাজনিত কারণে প্রথম লেগের খেলায় শাখতারের নিয়মিত খেলোয়াড়দের অনেকে ছিলেন না। অনূর্ধ্ব-২৩ দলে পরিণত হওয়া সেই একাদশই সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে লস ব্লাংকোদের ৩-২ গোলে হারিয়েছিল। 

মঙ্গলবার রাতে অনুষ্ঠিত ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে রিয়ালের সামনে নকআউট পর্বে যাওয়ার সমীকরণ সহজই ছিল। জিতলে চলে যেতো পরের রাউন্ডে, ড্র করলে থাকতো জোরালো সম্ভাবনা। এখন উল্টো হেরে বসায় জিনেদিন জিদানের দলের অবস্থা বেশ জটিল হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ম্যাচের প্রথমার্ধে কোনো দলই গোলের দেখা পায়নি। এক্ষেত্রে অবশ্য রিয়ালের কপাল পোড়া বলতেই হবে। চতুর্থ মিনিটে করিম বেনজেমার গোলমুখে বাড়ানো বল পাওয়ার পর মার্কো অ্যাসেনসিওর শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। অতিথি দল আরও বেশ কয়েকটি সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি। 

দ্বিতীয়ার্ধে জুনিয়র মোরায়েস আঘাত পেয়ে উঠে যান, তার জায়গায় বদলি হিসেবে নামেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড দেন্তিনহো। ৫৭ মিনিটে তার গোলেই এগিয়ে যায় শাখতার। 
ডি-বক্সের মুখ থেকে রাফায়েল ভারানেকে ঠিকমতো পাস দিতে পারেননি ফারল্যান্ড মেন্ডি। আর তাতেই দেন্তিনহো বল পেয়ে যান। বিস্ময়করভাবে তাকে চ্যালেঞ্জ না জানিয়ে সেটি তাকিয়ে দেখছিলেন ভারানে। তার অন্যমনস্ক হওয়ার সুযোগে ঠাণ্ডা মাথায় বাম পায়ের শটে বল জালে জড়িয়ে দেন্তিনহো স্বাগতিকদের উদযাপনের উপলক্ষ এনে দেন। 

রিয়াল এরপর গোল শোধের চেষ্টা করতে থাকলেও তা কাজে লাগেনি। উল্টো ৮২ মিনিটের মাথায় ডি-বক্সে ঢুকেই ডান পায়ের নিখুঁত শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ফরোয়ার্ড ম্যানর সলোমন। চলতি আসরে এই নিয়ে ৯ গোল হজম করলো রিয়াল। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের গ্রুপপর্বে তারা আর কখনোই এত গোল হজম করেনি।

গ্রুপের আরেক ম্যাচে মনচেনগ্লাডবাখকে ৩-২ গোলে হারিয়ে দিয়েছে ইন্টার মিলান। আর তাতেই জমে উঠেছে ‘বি’ গ্রুপের লড়াই। ইন্টারের হয়ে জোড়া গোল করেছেন স্ট্রাইকার রোমেলু লুকাকু। অন্য গোলটি করেন মাত্তেও ডারমিয়া। মনশেনগ্ল্যাডব্যাখের পক্ষে গোল দুইটি করেন আলসেন প্লেয়া।

মনচেনগ্লাডবাখ এখনো ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে সবার উপরে অবস্থান করছে। শাখতার ও রিয়াল দুই দলেরই পয়েন্ট ৭। তবে গোল পার্থক্যের কারণে শাখতার দুই ও রিয়াল তিন নম্বরে আছে। ৫ পয়েন্ট পাওয়া ইন্টার টেবিলের নিচে আছে। 

শেষ ম্যাচে রিয়ালের প্রতিপক্ষ মনচেনগ্লাডবাখ। এই ম্যাচে যারা, জিতবে তারা নকআউট পর্বে চলে যাবে। অন্য কোনো ফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। আর রিয়াল ড্র করলে শাখতার যেন ইন্টারের সঙ্গে হেরে যায়, সেই প্রত্যাশা জিদানের দলের করতেই হবে। যদি শাখতার ও রিয়ালের পয়েন্ট সমানও হয়, তাহলে হেড টু হেডে এগিয়ে থাকার সুবাদে শাখতারই নকআউট পর্বে চলে যাবে। এমনটি হলে ২৩ বছর পর রিয়ালের চ্যাম্পিয়নস লীগে নকআউট পর্বে খেলার রেকর্ড ভেঙে যাবে, প্রথমবারের মতো ইউরোপা লীগে খেলবে।

এসইউ