• ঢাকা
  • শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১, ২৭ চৈত্র ১৪২৭
প্রকাশিত: মার্চ ১, ২০২১, ০৪:০৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ১, ২০২১, ১০:১১ পিএম

‘কেন পেনাল্টি দিলো না জানি না’ 

‘কেন পেনাল্টি দিলো না জানি না’ 

গতকাল চেলসি এবং ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের মধ্যকার ম্যাচটি গোলশূণ্য ড্র হয়। তবে রেড  ডেভিলস কোচ ওলে গানার সোলশায়ারের মতে, ঠিক ১৫ মিনিটের সময়ে একটি পেনাল্টি পাওনা ছিলো তাদের। ডি-বক্সে হাত দিয়ে বল স্পর্শ করার অভিযোগ এসেছিলো চেলসির ক্যালাম হাডসন ওডোয়ের বিরুদ্ধে। কিন্তু ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) এর সাহায্য নিয়ে রেফারি সেই আবেদন নাকচ করে দিলে সোলয়ায়ার পক্ষপাতীত্বের অভিযোগ আনেন।

সোলশায়ারের মতে, পেনাল্টির ব্যাপারে তিনি শতভাগ নিশ্চিত। তবে রেফারি স্টুয়ার্ট আর্টওয়েল ভিএআরের সাহায্য নিয়েই জানিয়েছেন, হাত দিয়ে বল স্পর্শ করেননি ওডোয়। স্ট্যাম্ফোর্ড ব্রিজে গতকালের উত্তেজনাহীন ম্যাচকে মুখরোচক আলোচনায় পরিণত করেছে এই বিতর্কিত সিদ্ধান্ত।

ম্যাচের ১৫তম মিনিটে চেলসি গোলরক্ষক এডওয়ার্ড মেন্ডির মুষ্টিতে আঘাত পেয়ে গোল্বার থেকে সরে যাওয়া একটি শট ম্যানচেস্টার খেলোয়াড় গ্রিনউডের উপরের বাহুতে লাগে এবং ধারণা করা হচ্ছিলো ওডোয়ের হাতে লেগেছে। তবে সেই আবেদন নাকচ করে দেন রেফারি। 

এর পেছনে পরোক্ষভাবে চেলসির হাত আছে বলে মন্তব্য করেছেন সোলশায়ার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে থেকেই ব্লুজদের ওয়েবসাইটে হ্যারি ম্যাগুয়ারকে নিয়ে বেশ কয়েকটি লেখা প্রকাশ করা হয়, যেখানে ম্যাগুয়ার কিভাবে পেনাল্টি পেয়েছেন এবং কেন সেগুলো পেনাল্টি হয় না সেই ব্যাপারে বিশ্লেষণ রয়েছে। সোলশায়ারের ধারণা, এগুলো ম্যানইউকে পেনাল্টি না দেয়ার জন্য রেফারিকে প্রভাবিত করেছে।

তিনি বলেন, “এটা শতভাগ পেনাল্টি ছিলো। কেন দিলো না জানিনা। যখন খেলা থামানোর পরেও পেনাল্টি দেয়া হয়নি, তখনই আমরা দুই পয়েন্ট হারিয়েছি। আপনি তাদের ও্যেবসাইটে গেলেই বুঝতে পারবেন হ্যারিকে নিয়ে যা লেখা হয়েছে তা রেফারিদের পেনাল্টি দিতে অনুৎসাহিত করেছে।” 

অবশ্য চেলসি কোচ থমাস টুশেল বলছেন অন্য কথা। তার দাবী, গ্রিনউডের হাতে বল লেগেছে, পেনাল্টি কিংবা ভিএআর পর্যন্ত যাবার প্রশ্নই আসেনা। এদিকে গুঞ্জন উঠেছে, রেফারি আশঙ্কা করছিলেন পেনাল্টি দিলে ব্যাপারটি আরও বেশি বিতর্কিত হবে। সব মিলিয়ে গতকালের ম্যাচের পর বেশ অসন্তুষ্ট ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং কোচ সোলশায়ার।