• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১, ৭ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: মার্চ ৬, ২০২১, ০৫:১৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ৬, ২০২১, ০৫:১৭ পিএম

ইনিংস ব্যবধানে জয়ে টেস্ট বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারত

ইনিংস ব্যবধানে জয়ে টেস্ট বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারত

তৃতীয় টেস্ট দুই দিনে শেষ হলেও অন্তত স্বাগতিকদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামতে হয়েছিলো। কিন্তু এবার ইংল্যান্ডকে ইনিংস ব্যবধানে হারের লজ্জা দিয়েছে ভারত। নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে এই জয়ের মাধ্যমে প্রথম টেস্ট বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠলো বিরাট কোহলির দল।

দ্বিতীয় টেস্টের পরেই ক্রিকেট বিশ্বের কিংবদন্তি খেলোয়াড়রা মন্তব্য করেছিলেন, ভারতের স্পিন খেলার জন্য পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নিয়ে যায়নি ইংল্যান্ড। মাত্র দুই দিনেই তৃতীয় টেস্টে হারের পর গোলাপী বল, দিবারাত্রির ম্যাচ কিংবা নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের উইকেটকে বেশ আলোচনায় এনেছিলেন সাবেক ইংলিশ খেলোয়াড় মাইকেল ভন এবং অন্যান্যরা। তবে শেষ টেস্টে দুইয়ের বদলে তিনদিন খেলেছে দুই দল, কিন্তু ইনিংস ব্যবধানে হার এড়াতে পারেনি ইংলিশরা। 

প্রথম ইনিংসে ব্যাট করে ২০৫ রানে অলআউট হয়ে যাওয়া ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে বেশ বিপদেই পড়েছিলো ভারত। রিশাভ পান্থ আর ওয়াশিংটন সুন্দরের জুটি না গড়ে উঠলে বেশ স্বস্তিতেই থাকতে পারতো সফরকারীরা। কিন্তু বিধি বাম। নিজের জীবনের অন্যতম সেরা ১০১ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা হওয়া পান্থ দলকে এনে দিয়েছেন ৩৬৫ রানের নিরাপদ সংগ্রহ। অবশ্য ৯৬ রানে অপরাজিত থাকা ওয়াশিংটন কিছুটা আফসোস করতেই পারেন, কারণ মাত্র চার রান করার মতো সময় তাকে স্ট্রাইক প্রান্তে থাকা ব্যাটসম্যান কিংবা প্রতিপক্ষের বোলাররা দেয়নি। 

জবাবে তৃতীয় দিন ব্যাট করতে নেমেই সবগুলো উইকেট হারিয়েছে ইংল্যান্ড। ১৬০ রানে পিছিয়ে থেকে ইনিংস শুরু করেছিলো সফরকারীরা। কিন্তু ম্যান অব দ্যা সিরিজ রবিচন্দন অশ্বিন এবং এই সিরিজ দিয়ে টেস্টে অভিষিক্ত অক্ষর প্যাটেল দুজনেই ভাগ করে নিলেন ইংলিশদের ১০ উইকেট। অক্ষর পাঁচ উইকেট নিয়েছেন ৪৮ রানে, একই উইকেট নিতে অশ্বিনের কাছ থেকে ৪৭ রান আদায় করতে পেরেছে জো রুটের দল। অধিনায়ক রুটের ৩০ রানের পর কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে দলকে অন্তত লিডের দিকে নিয়ে যেতে চাইছিলেন অর্ধশতক তুলে নেয়া ড্যান লরেন্স। কিন্তু তাকে বোল্ড করে ফিরিয়ে অশ্বিন ইনিংস ব্যবধানে হারের লজ্জায় ডুবিয়েছেন। 

আগামী ১৮ জুন লর্ডসে প্রথম টেস্ট বিশ্বকাপের ফাইনালে অংশগ্রহণ করবে নিউজিল্যান্ড এবং ভারত। নিরপেক্ষ ভেন্যুতে বেশ প্রতিদ্বন্দ্বীতা হবে, ভক্তরা সাক্ষী হবে এক নতুন ইতিহাসের। তার আগ পর্যন্ত দুইদিনে হার, নাকি তিনদিনে ইনিংস ব্যবধানে হার বেশি লজ্জার- সেটি নিয়ে মুখরোচক আলাপ চলতেই পারে।