• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৪ মে, ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৯, ২০২১, ০৬:০০ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৯, ২০২১, ০৬:০৩ পিএম

‘সুপার লিগ’ ঝড়ে লণ্ডভণ্ড ইউরোপের ফুটবল

‘সুপার লিগ’ ঝড়ে লণ্ডভণ্ড ইউরোপের ফুটবল

‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগ’ বিতর্কে রোববার রাত থেকেই বিভক্ত ফুটবল ভক্তরা। ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে উল্লেখজনক, সাহসী কিংবা ন্যাকারজনক ঘটনা ঘটেছে ইউরোপে। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ ফুটবলে লিগের মধ্যে তিনটি লিগের ১২টি ক্লাব মিলে সম্পূর্ণ নতুন প্রতিযোগিতার আসর ‘সুপার লিগ’ আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) বিবিসি জানায়, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শীর্ষ ছয় দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, লিভারপুল, আর্সেনাল ও টটেনহাম হটস্পার এরই মধ্যে সুপার লিগে যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

স্পেনের লা লিগা থেকেও প্রধান তিন ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকো মাদ্রিদ ও বার্সেলোনাও যোগ দিচ্ছে এই আসরে। পাশাপাশি ইতালিয়ান সিরি আ-র প্রভাবশালী ক্লাব ইন্টার মিলান, এসি মিলান ও জুভেন্টাসও থাকছে সুপার লিগের প্রতিযোগিতায়।

তবে এই আসর আয়োজনের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে বেশ কিছু দেশ, ফুটবল ক্লাব এবং স্বয়ং আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা ফিফা। জার্মানির বুন্দেসলিগা ও ফ্রেঞ্চ লিগ আঁ-র ক্লাবগুলো এই আসর বয়কট করেছে। আয়োজন বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বোরিস জনসন।

আয়জক দল এবং দলের খেলোয়াড়দের বিশ্বকাপ থেকে বহিষ্কারের হুঁশিয়ারি দিয়েছে ফিফা। যুক্তরাজ্য, ইতালি ও স্পেনের অন্যান্য প্রতিযোগিতামূলক আসরের আয়জকরা বলছে, ঘরোয়া লিগেও নিষিদ্ধ হবে সুপার লিগের ক্লাবগুলো। তবে এখনো পর্যন্ত নিজেদের সিদ্ধান্তে অটল আছে সুপার লিগের আয়োজকরা।

ইউরোপিয়ান সুপার লিগের অংশীদার ১২টি ক্লাব যৌথ বিবৃতিতে কয়েকশো কোটি ডলারের বাজেট ঘোষণা করেছে। তাদের দাবি, করোনার আর্থিক ক্ষতি কাটিয়ে ক্লাবের অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য এই অর্থ কাজে লাগবে। এছাড়াও ইউরোপের ফুটবলের উন্নয়নেও ভূমিকা রাখবে সুপার লিগ।

যদিও এই দাবির সঙ্গে একমত নয় ইউরোপের সবচেয়ে বড় প্রতিযোগিতামূলক ফুটবল আসর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আয়োজক উয়েফা। সুপার লিগ বন্ধে সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানোর ঘোষণা দিয়েছে উয়েফা কমিটি। ক্লাব ফুটবলের ছোট দলগুলোও এই আসরকে গরিব ক্লাবের প্রতি ধনীদের বৈষম্যমূলক আচরণ হিসেবেই দেখছে।