• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ মে, ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮
প্রকাশিত: এপ্রিল ২০, ২০২১, ১০:২৯ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ২০, ২০২১, ১০:৫১ এএম

চেন্নাইয়ের স্পিনে কুপোকাত মোস্তাফিজের রাজস্থান

চেন্নাইয়ের স্পিনে কুপোকাত মোস্তাফিজের রাজস্থান

চেন্নাই সুপর কিংসের দেওয়া ১৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল রাজস্থান রয়্যালস। ওভারপ্রতি মোটামুটি ১০ রান করে এগুচ্ছিল তারা। কিন্তু দ্বাদশ ওভারে এসেই ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে রাজস্থান। এ সময় মঞ্চে আবির্ভূত হন ধোনির দুই স্পিন অস্ত্র মঈন আলী ও রবীন্দ্র জাদেজা। এই দুই স্পিনারের বিষে নীল হয়ে ৪৫ রানের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে মোস্তাফিজুর রহমানদের রাজস্থানকে।

এদিন প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৮৮ রান করে চেন্নাই। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৩ রান তুলতে পারে রাজস্থান। 

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব ভালো না হলেও শেষ পর্যন্ত ১৮৮ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে চেন্নাই। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৩ রান (১৭ বলে) করেন ফাফ ডু প্লেসি। এছাড়া মঈন আলী ২৬, আম্বাতি নাইডু ২৭ ও ডোয়াইন ব্রাভো ২০ রান করেন।

রাজস্থানে হয়ে মোস্তাফিজ নিয়েছেন ১ উইকেটে। এছাড়া চেতান সাকারিয়া ৩টি ও ক্রিস মরিস ২ উইকেট নেন। 

জবাবে ব্যাট করতে নেমে জস বাটলারের ব্যাটে ভালোই এগুচ্ছিল রাজস্থান। ২৪ রানে দুই উইকেট হারানোর পরও বাটলারের ব্যাট স্বপ্ন দেখাচ্ছিল মোস্তাফিজদের। কিন্তু দ্বাদশ ওভারে এসে রবীন্দ্র-মঈনের স্পিন আক্রমণে মুখ থুবড়ে পড়ে রাজস্থানের ব্যাটিং। ৮৭ থেকে ৯৬— এই ৯ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে রাজস্থান।

শুরুটা করেন রবীন্দ্র জাদেজা, জস বাটলারকে (৪৯) বিদায় করে। এরপর তাতে যোগ দেন মঈন আলী। শেষ দিকে রাহুল তেওয়াটিয়া (২০) ও জয়দেব উনাদকাট (২০) চেন্নাইয়ের ওপর চড়াও হওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু সেটা কেবল হারের ব্যবধান কমাতে পেরেছে, হার ঠেকাতে পারেনি।

চেন্নাইর হয়ে ৭ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন মঈন আলী। এছাড়া স্যাম কারেন ও রবীন্দ্র জাদেজা নিয়েছেন ২টি করে উইকেট। ডোয়াইন ব্রাভোর ঝুলিতে গেছে ১ উইকেট। 

এই জয়ে ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে উঠে এসেছে চেন্নাই। আর ২ পয়েন্ট নিয়ে ছয়ে আছে রাজস্থান। টেবিলের শীর্ষ দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর পয়েন্ট ৬।