• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
প্রকাশিত: মে ২, ২০২১, ০৮:১৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২, ২০২১, ০৮:১৭ পিএম

কৃপণ মোস্তাফিজের তিন উইকেট, রাজস্থানের জয় 

কৃপণ মোস্তাফিজের তিন উইকেট, রাজস্থানের জয় 

ভারতীয় প্রিমিয়ার লিগের চলতি মৌসুমে রাজস্থান রয়্যালস দলে নিয়েছে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমানকে। বাংলাদেশের এই গতি তারকা বেশ কয়েক ম্যাচে খুঁজে পেয়েছেন পুরোনো বোলিং ধার। আজ নিজের পুরোনো আইপিএলজয়ী ঘর সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের স্বপ্ন যেন নিজের বোলিং তোপেই পোড়ালেন মোস্তাফিজ। 

দিল্লীতে টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন হায়দ্রাবাদের নতুন অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। দলে সাবেক অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের জায়গা হয়নি। তবে কেইনের পরিকল্পনা যেন মাঠেই মারা গেলো। তৃতীয় ওভারের শেষ বলে যশ্বসী জয়সোয়ালের উইকেট নিয়েছিলেন রশীদ খান। এরপর আরেক ওপেনার জস বাটলারকে নিয়ে অধিনায়ক সানজু স্যামসন গড়েন ১৫০ রানের জুটি। সানজুকে অর্ধশতরান থেকে দুই রান আগেই ফিরে যেতে হলেও থামেনি বাটলারের তান্ডব, ৬৪ বলে ১২৪ রানের ইনিংস খেলে দলকে মাত্র তিন উইকেট হারিয়ে ২২০ রানের পুঁজি এনে দিতে মুখ্য ভূমিকা রেখেছেন তিনি।

অবশ্য ২২১ রান তাড়া করার জন্য প্রথম থেকেই প্রয়োজনীয় রানরেটের কাছাকাছিই রান করার চেষ্টায় ছিলো হায়দ্রাবাদ। কিন্তু দলকে নিজের দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই ব্রেক থ্রু এনে দেন মোস্তাফিজ। তার বল ওপেনার মনীষ পান্ডের প্যাডে লেগে স্ট্যাম্পে আঘাত করে। ফলে সপ্তম ওভারের প্রথম বলেই মাত্র ২০ বলে ৩১ রান করা মারকুটে এই ওপেনার ফিরে যান। এরপর নিয়মিত যাওয়া আসা করেছেন ব্যাটসম্যানরা।

মোস্তাফিজকে সঙ্গ দিয়েছিলেন আসরের সবচেয়ে দামি তারকা ক্রিস মরিস। বিজয় শঙ্কর, কেদার যাদব এবং আব্দুল সামাদকে ভয়ঙ্কর এবং সম্ভাবনাময় হবার সুযোগই দেননি এই বোলার। মোস্তাফিজ পরে ফিরিয়েছেন নেমেই বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকা আফগান মোহাম্মদ নবী এবং রানের খাতা খোলার আগেই ফিরিয়েছেন আরেক আফগান রশিদ খানকে। 

ম্যাচসেরা হয়েছেন আইপিএল ক্যারিয়ারে প্রথম শতকের দেখা পাওয়া জস বাটলার। তবে ম্যাচে ক্রিস মরিসের ২৯ রানে তিন উইকেট এবং মোস্তাফিজ পুরো স্পেলে মাত্র ২০ রানের বিনিময়ে তিন উইকেটের বোলিং তান্ডব দেখিয়ে জয়ের পথকে আরও সোজা করেছেন।