• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২১, ১২:১৯ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২০, ২০২১, ০৬:২৩ পিএম

৮২ বছর আগের ইতিহাস ফেরাল অদম্য ইতালি

৮২ বছর আগের ইতিহাস ফেরাল অদম্য ইতালি

১৯৩৯ সালের পর নিজেদের টানা ৩০ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড স্পর্শ করে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে 'এ' গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই নকআউট পর্ব খেলতে নামবে ইতালি। ওয়েলসকে ১-০ গোলে হারিয়ে আজ্জুরিরা  ১৯৩৯ সালের পর আবারো টানা ৩০ জয়ের স্বাদ পেল। একইসঙ্গে তারা টানা ১১ ম্যাচে ৩২ গোল প্রতিপক্ষের জালে পাঠানোর পাশাপাশি একটিও হজম না করার নজির স্থাপন করল। 

রোববার (২০ জুন) রোমে অনুষ্ঠিত ম্যাচের প্রথমার্ধে আজ্জুরিরা একচেটিয়া প্রাধান্য বিস্তার করে খেলেছে। ১২ মিনিটে আলেসান্দ্রো বাস্তোনির ক্রসে ডি বক্সের ভেতর অল্পের জন্য পা ছোঁয়াতে না পারেননি আন্দেরা বেলোত্তি। না হলে তখনই লিড পেয়ে যেতো স্বাগতিকরা। তিন মিনিট পর বাস্তোনির পাসে এমারসনের শট ওয়েলস গোলরক্ষক ড্যানি ওয়ার্ডের হাতে জমা পড়ে। 

১৭ মিনিটে দুইবার গোলের সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি রবার্তো মানচিনির দল। প্রথমে রাফায়েল তোলোইয়ের শট পোস্টের  পাশ দিয়ে চলে যায়। এরপর মাত্তেও পেসিনার শট গোলকিপারের গ্লাভসে চলে যায়। 

২৪ মিনিটে ইতালি দারুণ এক গোলের সুযোগ হাতছাড়া করে। ফেদেরিকো বের্নাদেস্কির অ্যাসিস্ট থেকে বল আদায় করে দুরহ কোণ থেকে আন্দ্রেয়া বেলোত্তি নেয়া শট এক্টুর জন্য জালে না জড়িয়ে বাইরে দিয়ে বেরিয়ে যায়।  

তিন মিনিট পর ম্যাচে প্রথম সুযোগ আসে ওয়েলসের সামনে। ড্যানিয়েল জেমসের কর্নার কিক থেকে বল পাওয়া ক্রিস গুন্টারের হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পরের মিনিটেই আবারো ইতালির গোল মিসের আক্ষেপ। এমারসনের পাসে বল নেয়া ভেরাতেল্লির ডান পায়ের শট লক্ষ্যে থাকেনি। পরের মিনিটে আজ্জুরিদের হয়ে গোল মিস করেন ফেদেরিকো চিয়েসা। দুরহ কোণ থেকে তার নেয়া শট পোস্টের ভেতর প্রবেশ করেনি।   

অবশেষে ৩৯ মিনিটে ইতালি কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায়। ডি বক্সের সামান্য বাইরে ডান দিকে আন্দ্রেয়া বেলাত্তিকে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড় ফাউল করলে স্বাগতিকরা ফ্রি কিক পায়। মার্কো ভেরাত্তির ফ্রি কিক থেকে বল নিয়েই বুদ্ধিদীপ্ত ব্যাকহিলে চোখের পলকে নিশানাভেদ করেন মাত্তেও পেসিনা। 

বিরতির ৬ মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ হতে পারতো। ফেদেরিকো বের্নাদেস্কির শট পোস্টের বারে লেগে ফিরে আসে। ৫৪ মিনিটের মাথায় ভুল পাসের কারণে অ্যারন রামসে বল পেয়ে ডি বক্সে ঢুকে ইতালির দুশ্চিন্তার কারণ হয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত কড়া মার্কিংয়ের কারণে আর পেরে ওঠেননি। 

৫৬ মিনিটে বের্নাদেস্কিকে চ্যালেঞ্জ করতে গিয়ে তার পায়ে পাড়া দিয়ে বসেন এটহান আম্পাডু। ফলে রেফারি তাকে সরাসরি লাল কার্ড দেখান এবং ওয়েলস ১০ জনের দলে পরিণত হয়। 

৬৫ মিনিটে চুয়েসার পাসে বল নেয়া বেলাত্তির শট পান পায়ে প্রতিহত করেন গোলরক্ষক ওয়ার্ড। পরের মিনিটে তোলোই হেডে গোল মিস করেন। খানিকপর নীল জার্সিধারীরা আবারো সুযোগ হারায় বের্নাদেস্কির শট পোস্টের বাইরে দিয়ে যাওয়ায়। 

ম্যাচের ৭৫ মিনিটে ওয়েলস তাদের সেরা সুযোগ পায়। মাঝ মাঠের কাছ থেকে ফ্রি কিক থেকে জো রোডোনের হেড পাসে ডি বক্সের মধ্যে বল পান সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা গ্যারেথ বেল। ফাঁকা রক্ষণ পেয়েও তিনি বাঁ পায়ের শটে বল উঁচুতে পাঠিয়ে দিয়ে দলের হতাশা বাড়ান। 

৮৮ মিনিটে বেলোত্তির শট প্রতিহত করেন ওয়ার্ড। অতিরিক্ত সময়ের দ্বিতীয় মিনিটেও তিনি দলকে গোল খাওয়া থেকে বাঁচান। 

তিন  ম্যাচ জিতে পূর্ণ ৯ পয়েন্ট নিয়ে এ গ্রুপের টেবিলের সবার উপরে থাকল ইতালি। সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্ট পেয়ে গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে পরের রাউন্ডে পা রেখেছে ওয়েলস। তুরস্কের বিপক্ষে ৩-১ গোলের দারুণ জয়ের ফলে ৪ পয়েন্ট পেলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় আসর থেকে বিদায় নিয়েছে সুইজারল্যান্ড। তুরস্ক সব ম্যাচ হেরেই এবারের ইউরো মিশন শেষ করেছে।  

আরআইএস