• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮
প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২১, ০৫:১৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২৪, ২০২১, ১১:১৫ এএম

সুপার লীগে হেরেই চলেছে মোহামেডান

সুপার লীগে হেরেই চলেছে মোহামেডান

বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লীগের (ডিপিএল) সুপার লীগ পর্বে হেরেই চলেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে ৩ উইকেটের পরাজয় বরণ করে নিতে হয়েছে তাদের। সুপার লিগ পর্বে এখনো একটি ম্যাচেও জয়ের মুখ দেখেনি শুভাগত হোমের দল।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রান সংগ্রহ করে মোহামেডান। জবাবে শেখ মেহেদীর ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩ বল বাকি থাকতেই লক্ষ্য টপকে যায় গাজী গ্রুপ। সুপার লিগে এটি তাদের প্রথম জয়।

লক্ষ্য তাঁড়া করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণাত্বক ব্যাটিং করতে থাকেন গাজীর দুই ওপেনার মেহেদী এবং সৌম্য সরকার। ১৭ বলে ২২ রান করে সৌম্য ফিরলে এক প্রান্তে অবিচল থাকেন মেহেদী। সৌম্য ছাড়া অবশ্য তাকে কেউ তেমন সঙ্গ দিতে পারেননি।

ইনিংসের শেষ ওভারের প্রথম বলে আর জয়ের ৫ রান দূরে থেকে আউট হবার আগে মেহেদী ৫৮ বলে ৯২ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস। এ ছাড়া গাজীর বাকি ব্যাটসমম্যানরা আসা যাওয়ার মিছিলে ব্যস্ত ছিলেন। যার পুরো কৃতিত্ব মোহামেডানের পেসারদের।

আসিফ হাসান একই নিয়েছেন ৩টি উইকেট। আর ২টি করে উইকেট শিকার করেছেন ইয়াসিন আরাফাত এবং শুভাগত হোম। সৌম্যর পর গাজীর হয়ে তৃতিয় সর্বোচ্চ রান আসে ইয়াসির আলির ব্যাট থেকে। তিনি করেন ১১ রান। এ ছাড়া আর বলার মতো রান করতে পারেননি।

এদিকে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুভাগতর ক্যামিও ইনিংসে ১৬৫ রানের পুঁজি পেয়েছিল মোহামেডান। শুভাগত শেষ পর্যন্ত ৩১ বলে ৫৯ রান করে অপরাজিত থাকেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান আসে পারভেজ হোসেন ইমনের ব্যাট থেকে।

এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান করেন ৩২ বলে ৪১ রান। ইরফার শুক্কুর ভকরো শুরুর শুরু আশা দেখিয়েও আউট হয়েছেন ২২ বলে ২৮ রান করে। আর ১৪ রান আসে মাহমুদুল হাসেনের ব্যাট থেকে। গাজীর বোলারদের মধ্যে ২টি করে উইকেট রাকিবুল অনিক, মেহেদী এবং মহিউদ্দিন তারেকের।