• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮
প্রকাশিত: জুলাই ৩১, ২০২১, ০১:৫৭ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ৩১, ২০২১, ০৭:৫৭ এএম

অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্রিকেটের বাইরে স্টোকস

অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্রিকেটের বাইরে স্টোকস

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিরতি নেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন বেন স্টোকস। ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) খবরটি নিশ্চিত করেছে।  বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে স্টোকসকে পাওয়া যাবে না এটা নিশ্চিত। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও খেলবেন কি না এই অলরাউন্ডার' তাও অনিশ্চিত হয়ে পড়ল। 

ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ী দলের এই ক্রিকেটার তার মানসিক স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে এবং বাঁ হাতের আঙ্গুলের ইনজুরি থেকে সেরে উঠতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। একই সঙ্গে আসন্ন ভারতের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ থেকেও নিজের নাম সরিয়ে নিয়েছেন।

যদিও তার এই ধরণের সিদ্ধান্তে ইসিবির পূর্ণ সমর্থন রয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের ক্রিকেট পরিচালক অ্যাশলে জাইলস। একই সঙ্গে তার নিজের সুস্বাস্থ্যের কথা ভেবে এ ধরণের সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রশংসাও করেছেন তিনি। এ ছাড়া ভবিষ্যতে স্টোকসকে আবারো ইংল্যান্ডের হয়ে খেলতে দেখার আশাও প্রকাশ করেছেন।

এ প্রসঙ্গে জাইলস বলেন, 'বেন (স্টোকস) তার অনুভূতি এবং সুস্থতার বিষয়ে মুখ খুলতে অসীম সাহস দেখিয়েছে। আমাদের দলের সকলের মানসিক স্বাস্থ্য এবং কল্যাণই আমাদের সবথেকে গুরুত্বের বিষয় ছিল এবং থাকবে। আমাদের খেলোয়াড়রা সবসময়ই নিজেদের প্রস্তুত করে নিরবিচ্ছিন্নভাবে দেশের হয়ে খেলতে চায়। কিন্তু চলমান মহামারি এটিকে আরও জটিল করে তুলেছে। স্বল্পতম স্বাধীনতাসহ পরিবার থেকে অনেকটা সময় ব্যয় করা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং। গত ১৬ মাস ধরে এই পরিবেশে প্রায় ক্রমাগত অবস্থান করা সবার সুস্থতার ওপর প্রভাব ফেলছে। বেনের যতক্ষণ প্রয়োজন তা দেয়া হবে এবং আমরা ভবিষ্যতে ইংল্যান্ডের হয়ে তাকে ক্রিকেট খেলতে দেখব।

ইংল্যান্ডের তিন ফরম্যাটের দলে থাকায় অনেক দিন ধরেই জৈব সুরক্ষা বলয়ে বন্দি ছিলেন স্টোকস। ফলে গত বছরের বেশিরভাগ সময় পরিবার থেকে দূরে ছিলেন । গত বছরের ডিসেম্বরে স্টোকস তার বাবাকে হারান; যিনি কি না অনেকদিন ধরেই ব্রেইন ক্যান্সারে ভুগছিলেন। সেই ধাক্কা সামলে স্থগিত হওয়া ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) খেলতে গিয়েছিলেন। সেখানে থাকতে হয়েছে জৈব সুরক্ষা বলয়ে বন্দি। রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে গিয়ে আঙ্গুলের ইনজুরিতে পড়লে তিনি ভারত থেকে দেশে ফিরে আসেন। 

এরপর পুরো ইংলিশ গ্রীষ্মজুড়েই হাতের ইনজুরির জন্য খেলতে পারেননি। ইনজুরির থেকে পুরোপুরি সেরে না উঠলেও ভিটালাটি ব্লাস্ট দিয়ে আবারো ক্রিকেটে ফেরেন। এরপর পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে আবারো ইংল্যান্ড দলে ফেরেন এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। যদিও টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিনি আবারো বিশ্রামে থাকেন। এখন হুট করে মানসিক স্বাস্থ্য এবং ইনজুরির কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিরতির সিদ্ধান্ত নিলেন।