• ঢাকা
  • বুধবার, ১০ আগস্ট, ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১০, ২০২২, ১২:৪০ এএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ৯, ২০২২, ০৬:৪০ পিএম

ডজন পূর্ণ করলো আবাহনী

ডজন পূর্ণ করলো আবাহনী
সংগৃহীত ছবি

রহমতগঞ্জকে হারিয়ে ফেডারেশন কাপের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী।

ফাইনালে আকাশি-নীলের জয় ২-১ ব্যবধানে। রেকর্ড ১২তম শিরোপার নিজেদের ঘরে তুললো আবাহনী। আর এতে করে মৌসুমের প্রথম দুই ট্রফি জিতে ঘরোয়া শ্রেষ্ঠত্ব পুনরুদ্ধারের পথে এগিয়ে গেলো ধানমন্ডির জায়ান্ট।

ইতিহাস গড়ার অপেক্ষা রহমতগঞ্জের, বিপরীতে রেকর্ড ১২তম শিরোপার হাতছানি আবাহনীর।

ফাইনালের আগে ইনজুরি ধাক্কা চিন্তার প্রধান কারণ, শেষ মুহূর্তে ছিটকে যান দলের দুই তারকা ডোরিয়েলটন-রাফায়েল। ফাইনাল ও টুর্নামেন্টের সেরা ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস।

দুই ব্রাজিলিয়ানের অভাব শুরু থেকেই টের পেয়েছে আবাহনী। মাঝমাঠ নিয়ন্ত্রণে রেখে প্রথম আধাঘন্টা একের পর এক আক্রমণ রহমতগঞ্জের। এগিয়ে যাওয়ার দুটি সুবর্ণ সুযোগ মিস করেন সানডে আর ফিলিপ।

সময় গড়াতে ছন্দ খুঁজে পায় আকাশি-নীল, নিস্প্রভ কলিন্দ্রেস হঠাৎই খোলস থেকে বেরিয়ে আসেন। তবে সহজ সুযোগটি মিস করেন অধিনায়ক জীবন। মিনিট দশেক পর রাকিবের দারুন প্রচেষ্টা পূর্ণতা পায়নি গোলকিপারের দৃঢ়তায়।

তবে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে আবাহনী সমর্থকদের নিরাশ করেন নি কলিন্দ্রেস। দারুণ রিফ্লেকশনে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বাঁ পায়ে বল পাঠান জালে। স্বস্তি নিয়ে বিরতিতে যায় লেমোসের দল।

দ্বিতীয়ার্ধেও অব্যাহত আবাহনীর দাপট, ব্যবধান দ্বিগুনে খুব বেশি সময় লাগেনি। এরপর খেলার ৬৪ মিনিটে প্লেসিং শটে লক্ষ্যভেদ রাকিবের।

যদিও ছয় মিনিট পরেই এক গোল শোধ দিয়ে ম্যাচ জমিয়ে দেয় রহমতগঞ্জ, ফিলিপ আজহার গোলে নাটকীয় কিছুর অপেক্ষা তখন। তবে বাকি সময়ে বিপদ হতে দেয় নি আবাহনীর রক্ষণ, পাল্টায় নি ম্যাচের ভাগ্য।

১২তম শিরোপা জিতে উৎসব ধানমন্ডি জায়ান্টদের, সেই সাথে নিশ্চিত হয় ২০২৩ এ এফসি কাপের প্লে অফ স্পট।

মৌসুম শুরুর দুই টুর্নামেন্টেই আবাহনীর দাপট। তাতে বসুন্ধরা কিংসও পেলো সতর্ক বার্তা, জমজমাট এক প্রিমিয়ার লিগের আভাস মিলছে এবারে।

জাগরণ/এসএসকে