• ঢাকা
  • বুধবার, ০৬ জুলাই, ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯
প্রকাশিত: মে ১৮, ২০২২, ১২:৪৩ এএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৭, ২০২২, ০৬:৪৩ পিএম

শক্ত অবস্থানে বাংলাদেশ

শক্ত অবস্থানে বাংলাদেশ
সংগৃহীত ছবি

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনে ব্যাট হাতে একরকম দাপুটে ছিল বাংলাদেশ দল। তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি আর লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল হাসান জয়ের অর্ধশতকে বাংলাদেশের সংগ্রহ দাড়িয়েছে তিন উইকেটের বিনিময়ে ৩১৮ রান। 

শ্রীলংকার প্রথম ইনিংসের ৩৯৭ রান থেকে মাত্র ৭৯ রান পিছিয়ে আছে স্বাগতিকরা। হাতে এখনও আছে সাত উইকেট।

শ্রীলঙ্কা তাদের প্রথম ইনিংসে ৩৯৭ রানে অলআউট হয়েছে। সর্বোচ্চ ১৯৯ রান করেছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। এক রানের জন্য ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো ডাবল সেঞ্চুরি করতে পারেননি তিনি। শেষ ব্যাটার হিসেবে নাঈম হাসানের বলে আউট হন তিনি। 

দিনেশ চান্দিমাল ৬৬, কুশাল মেন্ডিস ৫৪, ওশাদা ফার্নান্দো ৩৬ ও ভিশওয়া ফার্নান্দো ১৭ রান করেন।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ছয় উইকেট শিকার করেছেন নাঈম হাসান। ৩০ ওভারে ১০৫ রান খরচায় উইকেটগুলো নেন তিনি, ইকোনোমি তিন দশমিক ৫০। 

সবচেয়ে কম খরুচে ছিলেন সাকিব আল হাসান। তিনি ৩০ ওভার বল করে তিন উইকেট শিকার করেন। মাত্র ১.৫৩ ইকোনোমিতে ৬০ রান খরচ করেছেন এই অলরাউন্ডার। অন্য উইকেটটি নেন তাইজুল ইসলাম। এর মধ্য দিয়ে শেষ হয় দ্বিতীয় দিন।

স্কোর বোর্ডে ৭৬ রান নিয়ে আজ ব্যাটিং শুরু করেন বাংলাদেশ দলের দুই ওপেনার তামিম আর জয়। প্রথম সেশনে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন তারা। কোনও উইকেট না হারিয়েই স্কোরবোর্ডে ১৫৭ রান নিয়ে দ্বিতীয় সেশনে ব্যাট করতে নামে স্বাগতিকরা। তবে এই সেশনে কিছুটা চাপে পড়ে টাইগাররা। সাজঘরে একে একে ফেরেন জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত আর মুমিনুল।

এই সেশনেই দীর্ঘদিন পর ব্যক্তিগত শতকের দেখা পান তামিম।

৩ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ ২২০ রান নিয়ে চা বিরতিতে যায় টাইগাররা। সেঞ্চুরি ছাড়িয়ে ১৩৩ রানে অপরাজিত থাকেন তামিম। তবে বিরতি শেষে আর ব্যাট হাতে নামেননি তিনি। মাসল ক্র‍্যাম্পের কারণে তার পরিবর্তে ব্যাট করতে আসেন লিটন। সঙ্গে ১৪ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামেন মুশফিকুর। শেষ সেশনে এই দুই ব্যাটসম্যানের মনোযোগ টলাতে পারেনি লঙ্কান বোলাররা। বেশ সাবলীল ব্যাটিংয়ে দুইজনই তুলে নেন অর্ধশতক।

এই সেশনে কোনও উইকেট হারায়নি স্বাগতিকরা। ৩ উইকেটে দলের সংগ্রহ ৩১৮ রান। মুশফিক ৫৩ আর লিটন ৫৪ রান নিয়ে বুধবার ম্যাচের চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবেন।

জাগরণ/খেলা/ক্রিকেট/এমএ