• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ২০ মাঘ ১৪২৯
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৮, ২০২২, ১১:৪৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ৮, ২০২২, ১১:৪৯ পিএম

জেনে নিন

ব্রাজিল-ক্রোয়েশিয়ার তত্ত্ব-ইতিহাস

ব্রাজিল-ক্রোয়েশিয়ার তত্ত্ব-ইতিহাস

‘আমরা কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার আগে সেমিফাইনালের কথা ভাবতে পারি না। আমাদের প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়ার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এই ম্যাচে মনোযোগ দিতে হবে। ক্রোয়েশিয়ার অনেক মানসম্পন্ন খেলোয়াড় রয়েছে। তারা আমাদের ১১০ ভাগ মনোযোগ আকর্ষণের প্রাপ্য দল।’

হেক্সা মিশনে বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়া ব্রাজিল যে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে কতটা সতর্ক, দানি আলভেজের কথা থেকেই সেটি স্পষ্ট। ইতিহাস, ঐতিহ্য ও পরিসংখ্যানে এগিয়ে থাকলেও গত আসরের রানার্সআপ হওয়া প্রতিপক্ষকে সমীহই করছে সেলেসাও বাহিনী।

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে বর্তমানে শীর্ষে শিরোপা প্রত্যাশী ব্রাজিল। বিপরীতে ক্রোয়েশিয়া রয়েছে ১২তে। দুদলের ব্যবধান অনেক হলেও হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পূর্বাভাস মিলছে।

শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় এডুকেশন সিটি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে ব্রাজিল ও ক্রোয়েশিয়া। মুখোমুখি লড়াইয়ের ইতিহাস সাম্বার দেশটির একচেটিয়া প্রাধান্যের প্রমাণ দিচ্ছে। ৪ বারের দেখায় সেলেসাওরা ৩ বার জিতেছে, একবার হয়েছে ড্র। অর্থাৎ, প্রতিপক্ষের বিপক্ষে অপরাজেয় থাকার সুখস্মৃতি নিয়েই খেলতে নামবে টিটের শিষ্যরা।

বিশ্বমঞ্চে দুদলের সাক্ষাৎ হয়েছিল দুবার। ২০০৬ বিশ্বকাপে ১-০ গোলে ব্রাজিল জয় পায়। আট বছর পর ঘরের মাঠের বিশ্বকাপে সেলেসাওরা ৩-১ গোলে জিতে মাঠ ছেড়েছিল।

রিচার্লিসনের জোড়া গোলে সার্বিয়ার বিপক্ষে হেক্সা মিশনের শুরুটা ক্ল্যাসিক ঢংয়েই করে ব্রাজিল। পরের ম্যাচে কাসেমিরোর বাঁ-পায়ের দর্শনীয় গোলে সুইজারল্যান্ডকে পরাস্ত করে সেলেসাওরা, এক ম্যাচ হাতে রেখেই রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা নকআউট পর্বে চলে যায়। মূল খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিয়ে ক্যামেরুনের বিপক্ষে বেঞ্চ বাজিয়ে দেখেছিলেন টিটে। ম্যাচটি ১-০ গোলে হেরে ধাক্কাও খান।

ঘুরে দাঁড়ানোর সামর্থ্য দলটির ঐতিহ্যগতভাবেই রয়েছে, প্রমাণে টিটের দল একেবারেই সময় নেয়নি। ছন্দময় ও নান্দনিকতার পসরা সাজানো পারফরম্যান্স দেখানোর অপেক্ষায় ছিল ব্রাজিল। গ্রুপপর্বে না হলেও শেষ ষোলোতে দেখা যায় জোগো বনিতোর ছন্দ। সাউথ কোরিয়াকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে তারা কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াইয়ে নামছে।

মরক্কোর বিপক্ষে ড্র করে বিশ্বকাপ মিশনের শুরুতেই হোঁচট খায় ক্রোয়েশিয়া। ৩৬ বছর পর বৈশ্বিক আসরে খেলতে আসা কানাডার বিপক্ষে ৪-১ গোলের বড় জয় পায়। শেষ ম্যাচে বেলজিয়ামের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে। গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে নকআউটে পা রাখেন লুকা মদ্রিচরা।

শেষ ষোলোর লড়াইয়ে টাইব্রেকারে জাপানের স্বপ্নছুট থামিয়ে কোয়ার্টারে উঠে যায় ক্রোয়েশিয়া। নির্ধারিত সময়ের খেলা ছিল ১-১। অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও একই থাকে স্কোর। তারপর টাইব্রেকার। গোলরক্ষক ডমিনিক লিভাকোভিচ তিনটি শট ঠেকিয়ে দেন জাপানের, বনে যান ম্যাচের নায়ক।

সেমিফাইনালের টিকিট কাটার লড়াইয়ে এবার সেই ব্রাজিল ও ক্রোয়েশিয়া আলো কাড়তে চাইবে নিজেদের মতো করেই। নিজেদের সেরাটা দিয়ে ইতিহাসে তৃতীয়বারের মতো শেষ চারে যেতে চাইবে ক্রোয়েটরা, আর শিরোপার পথে আরেকধাপ এগোতে চাইবে ব্রাজিল।

জাগরণ/খেলা/বিশ্বকাপফুটবল২০২২/কেএপি