• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯, ০৩:৫৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯, ০৩:৫৯ পিএম

চিরকুট দিয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের ভর্তি

ঢাবি উপাচার্য ও ডিনের পদত্যাগের দাবি 

ঢাবি প্রতিনিধি
ঢাবি উপাচার্য ও ডিনের পদত্যাগের দাবি 

চিরকুটের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের একটি সান্ধ্যকালীন কোর্সে ৩৪ জন ছাত্রলীগ নেতাকে ভর্তির সুযোগ করে দেয়ার অভিযোগে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ও অনুষদের ডিন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের পদত্যাগসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদ। বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এসকল দাবি জানান সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। এতে বিশ^বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। 

তাদের অন্যান্য দাবির মধ্যে রয়েছে- অবৈধভাবে ভর্তি হওয়া ৩৪জনকে অছাত্র ঘোষণা করা এবং অবৈধ ছাত্রত্ব নিয়ে যারা ডাকসুতে নির্বাচিত হয়েছেন তাদের পদ শুন্য ঘোষণা করে উপ-নির্বাচন দেওয়া।

মানবন্ধনে পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হাসান, বিন ইয়ামিন মোল্লা, সোহরাব হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন 

হাসান আল মামুন বলেন, ৩৪ জনকে নিয়ম লঙ্ঘন করে ভর্তি করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সাধারণ ছাত্রদের দিকে নজর না দিয়ে ছাত্রলীগের প্রতিনিধিত্ব করছে। ছাত্রলীগ কোনো অপকর্ম করলে প্রশাসন তার বিচার করে না। উপাচার্য ছাত্রলীগের অন্যায়ের সহযোগী হিসেবে কাজ করেন।’ এসময় তিনি ‘অবৈধভাবে ভর্তি হওয়া’ ছাত্রলীগ নেতাদের  ছাত্রত্ব বাতিল করার দাবি জানান।

এতে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যে কলঙ্কজনক অধ্যায় রচিত হয়েছে, তার মাস্টারমাইন্ড হচ্ছেন বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান। আমারা এমন একজন উপাচার্য পেয়েছি যিনি রাতের আধারে চিরকুটের মাধ্যমে একটি সংগঠনের নেতাদের বিশেষ ক্ষমতাবলে ভর্তি করে। উপাচার্যের দিকে তাকালে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিচ্ছ্ববি দেখা যায়।

তারা বলেন, উপাচার্য ও ডিন কিভাবে রাতের আধারে চিরকুটের মাধ্যমে অবৈধভাবে ছাত্র ভর্তি করিয়ে তাদেরকে ডাকসু নির্বাচনে প্রার্থী করে বিজয়ী ঘোষণা করে। এসময় তারা উপাচার্যকে ‘চিরকুট ভিসি’ হিসেবে অবিহিত করেন। একই সঙ্গে অনতিবিলম্বে উপাচার্য এবং ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিনের পদত্যাগ দাবি করেন। এছাড়াও ‘অবৈধভাবে’ ভর্তি হয়ে ডাকসুতে নির্বাচিত ছাত্রলীগ নেতাদের পদ শুন্য ঘোষণা করে সেই পদগুলোতে উপ-নির্বাচনের দাবিও জানান তারা।

মানববন্ধন শেষে তারা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

অন্যদিকে, একই দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রদল। দুপুরের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের সামনে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে সংগঠনটির ৫০ জনের মতো নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন। সেখান থেকে তারা উপাচার্য ও ডিনের পদত্যাগসহ ভর্তি হওয়া ছাত্রলীগ নেতাদের ডাকসুর পদ থেকে অব্যাহতি ও তাদের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবি জানান। 

এমআইআর/টিএফ
 

আরও পড়ুন

Islami Bank
  • তারুণ্য/ক্যাম্পাস এর আরও খবর