• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭
প্রকাশিত: মে ২০, ২০২০, ০১:১৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২০, ২০২০, ০১:১৫ পিএম

প্রতিদিন ৯০ কেজি ‘মল’ সরবরাহ করার নির্দেশ উনের

প্রতিদিন ৯০ কেজি ‘মল’ সরবরাহ করার নির্দেশ উনের
কিম জং উন

কিম জং উন বলে কথা! কখন মাথায় কী আসে ঠিক নেই। মাঝখানে মৃত্যু-টিত্যু নিয়ে বেশ গল্পগুজব ছড়াচ্ছিল তাকে নিয়ে। কিন্তু সব ঠেলে ঠুলে আবার বেরিয়ে এলেন তিনি উত্তর কোরিয়ার রঙ্গমঞ্চে। এসেই খবরের জন্ম দিলেন। 

রেডিও ফ্রি এশিয়ার বরাত দিয়ে ভারতের নিউজ ক্র্যাব পত্রিকা জানায়, নিজ দেশের মানুষদের প্রতিদিন মল সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। মানে প্রত্যেক নাগরিককে প্রতিদিন ৯০ কেজি করে মল সরবরাহ করতে হবে। অমান্যে শাস্তি।

শাস্তি বলতে অবশ্য মারধর কিংবা ফাটকে ঢোকানো নয়। শাস্তি হলো, যে নির্দেশ অমান্য করবে, তাকে ওই ৯০ কেজির সঙ্গে অতিরিক্ত ৩০০ কেজি মল সরবরাহ করতে হবে। আর সেটা সম্ভব না হলে নগদ টাকা জরিমানা। 

৯০ কেজি মল অবশ্য পুরোটা নিজের হলে ভাল। সেটা সম্ভব না হলে পশুর মল। ভাগ্যিস, বিকল্পটা ছিল। নইলে কী হতো কে জানে! একজন মানুষ কয়দিনে ৯০ কেজি মল ত্যাগ করে? পুরো পরিবার মিলেও কি একমাসে পারত সেটা যোগান দিতে?

এই নির্দেশ অবশ্যই অমান্য করা যাবে না। অমান্য করলে বাড়তি ৩০০ কেজি মল সরবরাহের খাড়া নেমে আসবে।

তবে কিমেরও এই হুকুম না দিয়ে উপায় ছিল না। দেশটিতে সারের সঙ্কট চলছে বহুদিন ধরে। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে কিমের বাবার সংঘাতের কারণে দেশে সার সঙ্কট দেখা দেয়। সে সঙ্কট চলছে এখনও।সঙ্কট নিরসনে রাসায়নিক সারের কথা ভুলে এখন তাই জৈব সারের দিকে নজর দিতে হচ্ছে জং উনকে।

এসএমএম

আরও পড়ুন