• ঢাকা
  • সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৫, ২০২৩, ১২:২৫ এএম
সর্বশেষ আপডেট : এপ্রিল ১৫, ২০২৩, ১২:২৫ এএম

‘তত্ত্বাবধায়ক নয়, যুক্তরাষ্ট্র চায় সুষ্ঠু নির্বাচন’

‘তত্ত্বাবধায়ক নয়, যুক্তরাষ্ট্র চায় সুষ্ঠু নির্বাচন’
ছবি ● সংগৃহীত

তত্ত্বাবধায়ক সরকার নয়, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চায় বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

শুক্রবার (১৪ এপ্রিল) বিকালে সিলেটে মোমেন ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে অসহায় ও দুস্থদের মধ্যে আর্থিক অনুদান প্রদান অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চায় বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হোক, তারা কোনও তত্বাবধায়ক সরকার চায় না, তারা দেশের আইন অনুযায়ী নির্বাচন চায়।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের উন্নয়নের সহযোগী হতে চায়। তাই আমাদের দিকে বিশেষ নজর রয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন গঠনসহ বিভিন্ন পদক্ষেপে তারা খুশি হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আমেরিকা চাইছে বাংলাদেশ একটি আদর্শ নির্বাচন করে পৃথিবীকে দেখাবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সব দলের সক্রিয় সহযোগিতা প্রয়োজন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিষয়ে এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, কোনো কোনো ক্ষেত্রে এর ব্যবহারটি ঠিকমতো হয়নি৷ যেখানে তার ব্যত্যয় হয়েছে সেখানে সংশোধন করা হবে। তাতে যুক্তরাষ্ট্র সন্তুষ্ট হয়েছে। তারা এই আইনটি পরিবর্তনের কথা বলেনি। আইনের যাতে অপপ্রয়োগ না হয় সেই বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্র বলেছে।

শুক্রবার (১৪ এপ্রিল) সকালে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে সিলেট জেলা প্রসাসন আয়োজিত মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন সুন্দর ও স্বচ্ছ হবে। সরকার চাচ্ছে নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে। এজন্য নির্বাচন কমিশন সব প্রস্তুতি নিয়েছে। সব দল, তাদের সমর্থক ও ভোটারদের আন্তরিকতা থাকলে সুন্দর ভোট হবে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির সময় ফেইক ভোট ছিল ১ কোটি ২৩ লাখ। ভুয়া ভোট বন্ধ করতে ছবি সম্বলিত আইডি কার্ড ও স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স রাখা হয়েছে। এখন আর ভুয়া ভোটের কোনো সুযোগ নেই।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের উপর দেশের জনগণের আস্থা আছে। জনগণ ভোট দিলে দল ক্ষমতায় থাকবে, নইলে অপজিশনে থাকবে। কিন্তু দেশের জনগণ ১৪ বছরের সাফল্যের পথ ধরে আওয়ামী লীগের ওপর আস্থা রাখবে।

জাগরণ/রাজনীতি/আওয়ামীলীগ/এসএসকে