• ঢাকা
  • সোমবার, ২০ মে, ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
প্রকাশিত: মে ১৮, ২০২৩, ০১:৪০ এএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৮, ২০২৩, ০১:৪০ এএম

‘ষড়যন্ত্র চলবেই, সজাগ থাকুন‍‍`

‘ষড়যন্ত্র চলবেই, সজাগ থাকুন‍‍`
ছবি ● সংগৃহীত

দেশের অর্জন নস্যাৎ করতে দেশে ও বিদেশে ষড়যন্ত্র হচ্ছে জানিয়ে দলের জনগণকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানাতে আসা দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে দেয়া বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে একটা গভীর ষড়যন্ত্র চলতেই থাকবে যেন আমাদের অর্জনগুলো নস্যাৎ হয়। আওয়ামী লীগই একমাত্র দল বাংলাদেশের মানুষের কল্যাণের চিন্তা করে, বাকিরা লুটেরার দল। তারা এদেশের মানুষের কল্যাণের চিন্তা করে না।

‘সে কথা মাথায় রেখে ওই সন্ত্রাসের দল, খুনির দল, ওই যুদ্ধাপরাধীদের দল যেন আর বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে না পারে, সেদিকে সবাইকে নজর দেয়ার অনুরোধ জানাই।’

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নিহত হওয়ার পর দীর্ঘদিন নির্বাসনে থেকে ১৯৮১ সালের ১৭ মে দেশে ফেরেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা। এরপর থেকে এই দিনটি তার স্বদেশ প্রত্যাবাসন দিবস হিসেবে পালন করছে দলের নেতাকর্মীরা।

এ সময় বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘ভোটচোর যারা ছিল, ডাকাত, রীতিমত ভোট ডাকাত যারা ছিল, তারাই এখন গণতন্ত্র চায়, ভোটের অধিকারের কথা বলে। যাদের জন্মই হয়েছে অবৈধভাবে তাদের কাছে শুনতে হয় এসব কথা। এগুলো মাঠের কথা মাঠে থাকবে। আমরা জনতার সঙ্গে থাকব, জনতার পাশে থাকব।

‘জনগণের আস্থাই আওয়ামী লীগের একমাত্র শক্তি। জনগণের আস্থা-বিশ্বাস অর্জন করে তাদের ভোটের মাধ্যমেই তো আমরা সরকারে এসেছি। তাদের বিশ্বাস-আস্থাটাই আমাদের একমাত্র শক্তি। আর কোনো শক্তি নেই। বাংলাদেশের জনগণই আওয়ামী লীগের একমাত্র বন্ধু।’

এ সময় আওয়ামী লীগকে সাংগঠনিকভাবে আরও শক্তিশালী করতে দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘সংগঠনগুলোকে শক্তিশালী করতে হবে, মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। পাশাপাশি উন্নয়নের গতি যাতে ত্বরান্বিত হয় তার ব্যবস্থা আমাদের করতে হবে।

‘আওয়ামী লীগ জনগণের সংগঠন, জনগণের কল্যাণে কাজ করে যাবে, এটিই আমাদের একমাত্র প্রতিজ্ঞা। কাজেই জাতির পিতার যে স্বপ্ন, দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো, সে লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি, জাতির পিতার সোনার বাংলা ইনশাল্লাহ আমরা গড়ে তুলব।’

নেতাকর্মীদের সামনে ১৯৮১ সালে দেশে ফিরে আসার দিনের কথা স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হতে দেখা যায় বঙ্গবন্ধুকন্যাকে। তিনি বলেন, ‘যেদিন ফিরে এসেছিলাম, পেয়েছিলাম এদেশের জনগণকে আর আমার আওয়ামী লীগের অগণিত নেতাকর্মীকে। সেদিন থেকে আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশের জনগণ, তারাই তো আমার পরিবার।’

জাগরণ/রাজনীতি/এসএসকে