• ঢাকা
  • বুধবার, ০৬ জুলাই, ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯
প্রকাশিত: মে ২৭, ২০২১, ০৬:০৫ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ২৭, ২০২১, ১২:০৫ পিএম

জলবায়ু বিপর্যয়

বঙ্গোপসাগরে তাপমাত্রা বাড়ায় তীব্রতা বাড়ছে ঘূর্ণিঝড়ের

বঙ্গোপসাগরে তাপমাত্রা বাড়ায় তীব্রতা বাড়ছে ঘূর্ণিঝড়ের

ভারত মহাসাগরের বিভিন্ন অঞ্চলের তাপমাত্রা দ্রুত বৃদ্ধির কারণে দক্ষিণ এশিয়ার উপকূলীয় অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড়ের প্রকোপ বাড়ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন গবেষকরা। 

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আগামী দিনগুলোতে নিয়মিত প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিতে পারে বলেও মত বিশেষজ্ঞদের। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জলবায়ু বিশ্লেষকরা এমন তথ্য দিয়েছেন। তারা জানান, ভারত, বঙ্গোপসাগর ও আরব সাগরের সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড়গুলোর অস্বাভাবিকতা বৈশ্বিক উষ্ণায়নেরই ফল।

এক জরিপে দেখা গেছে ১৮৯১ সাল থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত ভারত মহাসাগরের অন্তর্গত আরব সাগরের পৃষ্ঠের গড় তাপমাত্রা ছিল ২৮ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নিচে। এর ফলে উপকূলীয় অঞ্চলে বছরে ৯৩টি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হয়। একই সময়ে বঙ্গোপসাগরের তাপমাত্রা ২৮ ডিগ্রী সেলসিয়াসের উপরে থাকায় এ অঞ্চলে অন্তত ৩৫০টি ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে ২০০১ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে আরব সাগরের তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ ডিগ্রী সেলসিয়াসে। এর ফলে মাত্র ২০ বছরেই ঐ অঞ্চলে ঝড় হয়েছে ২৮টি। 

অন্যদিকে বিজ্ঞান সাময়িকী নেচারের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ভারত মহাসাগরের এই তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে এই অঞ্চলে আকারে ছোট ঝড়গুলোর ভয়াবহতাও আগের চাইতে বহুগুণে বেড়ে গেছে। সাম্প্রতিক সময়ে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আর তকতে এরই উৎকৃষ্ট উদাহরণ বলে মত বিশেষজ্ঞদের। 

এছাড়াও গার্ডিয়ান জানায়, বৈশ্বিক উষ্ণতা বাড়ায় হিমালয়ের বরফ গলতে থাকায় ২০৬০ সাল নাগাদ ভারত মহাসাগরের উচ্চতা তিনগুণ বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা। এতে করে পানিতে তলিয়ে যেতে পারে ভারত, বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের উপকূলের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। ঘূর্ণিঝড় আর জলোচ্ছ্বাসে উপকূলের মানুষদের দুর্ভোগ আরও বাড়ারও আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

আসন্ন এসব ঝুঁকির কারণে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ এবং জনগণ উভয়ের পক্ষকে আগামীতে বিশাল চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন