• ঢাকা
  • বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০২২, ২ ভাদ্র ১৪২৯
প্রকাশিত: জুন ২৫, ২০২২, ০৭:৩৯ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২৫, ২০২২, ০১:৩৯ পিএম

আমার পরিবারই সব কিছুর জন্য দায়ী

আমার পরিবারই সব কিছুর জন্য দায়ী

জুন মাসে কলকাতায় বেশ কয়েকজন মডেল-অভিনেত্রী আত্মহত্যা করেছেন। তার মধ্যে পল্লবী দে, বিদিশা মজুমদার ও মঞ্জুষা নিয়োগী অন্যতম। তাদের আত্মহত্যার রেশ কাটতে না কাটতেই খবর এল কলকাতার এক উঠতি মডেলের আত্মহননের চেষ্টার।

এই মডেলের নাম দেবলীনা দে। ২৭ বছর বয়সী এই তরুণী বিভিন্ন সিরিয়াল ও মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেন। শুক্রবার (২৪ জুন) রাতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বেশ কয়েকটি ঘুমের ওষুধ খেয়ে নেন তিনি। তবে ভোর রাতেই পরিবারের সদস্যরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। ফলে মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে যান তিনি।

আত্মহত্যার চেষ্টার পেছনে পরিবারকে দায়ী করেছেন দেবলীনা। ফেসবুকে তিনি লিখেছিলেন, ‘বেঁচে থাকার জন্য আমি অনেক সংগ্রাম করেছি। আমার পরিবারই সব কিছুর জন্য দায়ী। এখন আমি শান্তি চাই। বিদায়।’

কলকাতার গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, কালনার বাসিন্দা দেবলীনা দে গত দেড় বছর ধরে মুকুন্দপুর এলাকার উত্তলিকা আবাসনে ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে থাকছিলেন। সিরিয়ালেও কিছু কিছু কাজ পেতেন। তবে উপার্জন খুব একটা হচ্ছিল না। পরিবারের সঙ্গে এ নিয়ে মাঝেমধ্যেই মনোমালিন্য চলত বলে জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

গত ২২ জুন দেবলীনার জন্মদিনে ঘটনা চরমে ওঠে। কালনায় নিজের পৈতৃক বাড়িতে জন্মদিন পার্টির পর বাবার কাছে নতুন একটি ফ্যাশন হাউজ খোলার জন্য লাখ খানেক টাকা চান দেবলীনা। এটা নিয়েই বাঁধে ঝামেলা। এক পর্যায়ে ভাইয়ের সঙ্গে হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়েন তরুণী।

সেদিন রাতেই হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম থেকে ভাইকে ব্লক করেন তিনি। পরের দিন বিকালে একটি গাড়ি ভাড়া করে দেবলীনাকে কলকাতায় পাঠানো হয়। সেখানে ফেসবুকে নিজের পরিবারের বিরুদ্ধে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন দেবলীনা।