• ঢাকা
  • শনিবার, ২৮ মে, ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জুলাই ২৬, ২০১৯, ০৮:৫৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ২৬, ২০১৯, ০২:৫৩ পিএম

বড়পুকুরিয়া

বাণিজ্যের কারণে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ

বাণিজ্যের কারণে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ-ছবি : জাগরণ

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের অনুমোদনে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হলেও তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা ও সরকার দলীয় রাজনৈতিক ব্যক্তির নিয়োগ বাণিজ্যের কারণে এখন পর্যন্ত শ্রমিকদের নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে আছে।

শুক্রবার (২৬ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে শ্রমিক নেতারা এ অভিযোগ করেন।

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে আন্দোলনরত শ্রমিকদের স্থায়ী নিয়োগ ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে ৫টি হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে আন্দোলন পরিচালনা কমিটি।

বিক্ষোভ সমাবেশে বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র দিনাজপুর জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এসএম নুরুজ্জামানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ, বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র আন্দোলন পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ, নূর আলম সিদ্দিক, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। 

বিক্ষোভ সমাবেশে নেৃতৃবন্দ বলেন, বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ২৭৫ মেগাওয়াট প্রকল্পের শ্রমিকরা দীর্ঘ দুই বছর যাবৎ বিদ্যুৎ উৎপাদনকর্মী হিসাবে স্থায়ী নিয়োগের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। আন্দোলনের এক পর্যায়ে তাপ বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ, জেলা ও পুলিশ প্রশাসন এবং আন্দোলনের নেতৃবৃন্দের সাথে যৌথ চুক্তিনুযায়ী ১৫৪ জন শ্রমিককে স্থায়ী নিয়োগের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়।

এরইমধ্যে ১৫৪ জনের ২০ জনকে নিয়োগ দিয়েছে তাপ বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। অবশিষ্ট ১৩৪ জনের মধ্যে আবারও ২০ জনের নিয়োগের তারিখ নির্ধারিত হলেও একই স্বার্থান্বেষী মহলের কারণে নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে গেছে। 

তারা বলেন, নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ হওয়ার পরপরই শ্রমিকদের ওপর মামলা দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে ৫টি হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে ১৬জন আন্দোলনরত শ্রমিক নেতাকে গ্রেফতার করে জেলাখানায় পাঠানো হয়েছে।

সমাবেশ থেকে অবিলম্বে শ্রমিকদের স্থায়ী নিয়োগ দান এবং হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়ার দাবি জানানো হয়। 

টিএস/এসএমএম

 

আরও পড়ুন