• ঢাকা
  • সোমবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
প্রকাশিত: আগস্ট ১২, ২০১৯, ০২:২১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : আগস্ট ১২, ২০১৯, ০২:২২ পিএম

জৈনপুরী পীরের পেছনে নামাজ পড়লেন না মুসল্লিরা

গাইবান্ধা সংবাদদাতা
জৈনপুরী পীরের পেছনে নামাজ পড়লেন না মুসল্লিরা
গাইবান্ধা বিষুববাড়ীর ঐতিহ্যবাহী বাঘমারা ঈদগাহ মাঠ -ছবি : জাগরণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের বিষুবাড়ী গ্রামের ঐতিহ্যবাহী বাঘমারা ঈদগাহ এবার ঈদের জামাত হয়নি। ইমাম নিয়োগে পক্ষ-বিপক্ষের মাঝে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঈদের জামাত বন্ধ করে দেয়া হয়। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এই বাঘমারা ঈদগাহ মাঠে দরবস্ত ইউনিয়নের বিষুবাড়ী, বিশ্বনাথপুর, রহলা মাঘমারাসহ পাশ্ববর্তী ৮ গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষ প্রতি বছর ঈদের নামাজ আদায় করতন। তবে এবার ইমাম নিয়োগে জটিলতার কারণে এ মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়নি। 

মাঠ কমিটির সদস্য সামিউল ইসলাম বলেন, এ মাঠে প্রতি বছরই জৈনপুরীর পীর ঈদের নামাজ পড়াতেন। তবে এবার মুসল্লিদের একাংশ ওই পীরের পেছনে নামাজ আদায় করতে রানি হয়নি। ফলে মুসল্লিরা পীরের পক্ষে-বিপক্ষে দুটি অংশে বিভক্ত হলে উভয়ের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। 

এ বিষয় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রামকৃষ্ণ বর্মণ জানান, মুসল্লিদের উভয় অংশকে বিদ্যমান সমস্যা সমাধানের জন্য ডাকা হয়েছিল। তাদের উভয়ের সঙ্গে কয়েকদফা বৈঠক করেও সমাধানে আনতে পারিনি। আইনশৃঙ্খলা বিঘ্ন ঘটতে পারে এই আশঙ্কায় ঈদ জামাত বন্ধ করে দিয়ে সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

তবে এ মাঠের মুসল্লিরা যে যার মত করে অন্যান্য মাঠে আলাদা জামাতে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।
 

এমএইউ/একেএস

আরও পড়ুন