• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৭ মে, ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
প্রকাশিত: জুলাই ১, ২০২১, ০৫:০১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুলাই ১, ২০২১, ১১:০১ এএম

পাথরঘাটায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের বাড়িতে হামলা, লুটপাট

পাথরঘাটায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের বাড়িতে হামলা, লুটপাট

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি

জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে বরগুনার পাথরঘাটায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডার এএফএম মো. হাবিবুর রহমানের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার ভোর ৫টার দিকে তার প্রতিপক্ষ গোলাম মোস্তফাসহ তার লোকজনে এ হামলা চালায়। পাথরঘাটা উপজেলার নাচনাপাড়া ইউনিয়নের শিংড়াবুনিয়া গ্রামের ৮নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে পাথরঘাটা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পাথরঘাটা থানার ওসি মো. আবুল বাসার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

এএফএম মোঃ হাবিবুর রহমান অভিযোগ করেন, তার বাড়ির সামনে তিন জনের এক একর ৫৬ শতাংশ রিসিবারের (বিরোধীয়) জমি প্রতি বছর থানা থেকে এক বছরের জন্য লিজ প্রদান করা হয়। এ সময় মুক্তিযোদ্ধার ১৭ শতাংশ ভোগ দখলী জমি বাদ দিয়ে লিজ প্রদান করেন পাথরঘাটা থানা। এ বছর লিজ গৃহিতা গোলাম মোস্তফা মুক্তিযোদ্ধা এএফএম মো. হাবিবুর রহমানের ভোগদখলী জমী দখল করতে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে হামলা ও লুটপাট চালায়। হামলাকারীরা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও তার স্ত্রী ফজিলা বেগমকে ঘরের মধ্যে আটকে রেখে মাছের ঘেরে বিষ দিয়ে মেরে ফেলেন। এ ছাড়া ঘেরের পাশে লাগানো ৩শতাধীক ফলদ গাছ কেটে ফেলেছে। হাবিবুর রহমান তার পরিবারের নিরাপত্তার দাবী জানিয়েছেন প্রসাশনের কাছে।

এ বিষয় গোলাম মোস্তফা জানান, আমরা থানা থেকে জমি লিজ নিয়েছি তাই হাবিব মিয়ার জমি আমাদের প্রাপ্য। এ কারনে আমরা ওই জমি দখল করতে গেছি। পরে পুলিশ এসে বাঁধা দেয়ায় ওখান থেকে আমরা সরে এসেছি।

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত ওসি মো. আবুল বাসার জানান, বুধবার সকালে মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান ৯৯৯ ফোন করার পর আমরা থানায় মেসেস (সংবাদ) পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে হাবিব ভাই এবং তার স্ত্রীকে উদ্ধার করি। এ সময় হামলাকারিরা পালিয়ে যায়। পরে হাবিব ভাই ও তার স্ত্রীকে থানায় এনে একটি অভিযোগপত্র নিয়েছি। বিষয়টি আইনী ব্যাবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।