• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর, ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৯, ২০২১, ০৩:১৩ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : সেপ্টেম্বর ৯, ২০২১, ০৯:১৩ এএম

সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে

সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে

কুমিল্লা নগরীর শাসনগাছা ফ্লাইওভার সংলগ্ন শাসনগাছা বাস টার্মিনালের সড়কটি দিয়ে নগরীতে প্রবেশ করতে হয়। কিন্তু বাস টার্মিনালে প্রবেশ মুখের সড়কটিতে বড় বড় গর্তের কারণে প্রতিদিনই ঘটছে দুর্ঘটনা। সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। সামান্য বৃষ্টি হলেই সমস্যার নতুন মাত্রা যোগ হয়ে জলজটে। 

সরজমিনে দেখা যায়, কুমিল্লা শাসনগাছা রেলওভারপাসের নিচে পশ্চিম পাশের উত্তরপাশের সড়কটি বেহাল অবস্থায় পড়ে আছে। বৃষ্টির পানি জমে থাকার কারনে দুর্ভোগ যেন অনেকটাই বেড়ে গেছে। বড় বাসগুলো গর্তে পড়ে আটকে যাচ্ছে, ঘষা লাগছে ওভারপাসে। এতে করে কোটি টাকার যানবাহন মালিক ও চালকেরা যেন অসহায় নির্বাক থাকা ছাড়া আর কোন উপায় দেখছে না। তবে তাদের চোখে মুখে কষ্ট ও তীব্র ক্ষোভ সহজেই প্রকাশ পাচ্ছে। বড় গর্তগুলোতে গাড়ির চাকা পড়ে বাম্পার, মার্টগেট, বডি নষ্ট হচ্ছে। ওভারপাসে ঘষা লেগে নষ্ট হচ্ছে লুকিং গ্লাস, গাড়ির রঙ, জানালা। অনেক সময় বাসগুলো বিকল হয়েও পড়ছে। এ সময় রেকার এনে টেনে গাড়ি তুলতে হয়। যার ফলে সড়ক বন্ধ হয়ে ওভারপাসের গোড়ায় যানজট তৈরি হয়।

অপরদিকে, যানজট নিরসনে টার্মিনালের গাড়ি যাতে ওভারপাসের পশ্চিম পার্শ্বে পার্কিং ও না দাঁড়াতে পারে সেজন্য জেলা পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগের পক্ষ থেকে মূল সড়কে আলাদা সড়ক বিভাজক তৈরি করা হয়েছে। এই সড়ক বিভাজকের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে শাসনগাছা ওভারপাসের পশ্চিম প্রান্তে না কোন জটলা ও যানজট তৈরি না হয়। কিন্তু এই প্রচেষ্টাও ভেস্তে যাচ্ছে বেহাল সড়কটির কারনে। আদর্শ সদর উপজেলার এলাকার বাসিন্দা ও পরিবহন শ্রমিক মো. বাবুল মিয়া বলেন, এই সড়কের কোন মা-বাপ নেই। কয়েক বছর ধরে আমাদের সীমাহীন দুর্দশা কেউ দেখছে না। এমন কোন দিন নেই যে সড়কটিতে দুর্ঘটনা হচ্ছে না। বিশেষ করে ড্রেন দিয়ে বৃষ্টির পানি বের হতে পারে না। একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে থাকে। নতুন কোন গাড়ি বা চালক টার্মিনালে প্রবেশ করতেই দুর্ঘটনার মধ্যে পড়ে। বড় গর্তগুলো অনেক গভীর। সেজন্য গাড়ির চাকা পড়লে আর উঠাতে বিপাকে পরেন চালকেরা।

ওই এলাকার বাসিন্দা সাংবাদিক এমদাদুল হক সোহাগ বলেন, রাস্তার এমন বাজে অবস্থা যেটা দিয়ে গাড়ি চলাচল করা খুবই বিপদজনক ও কষ্টকর। প্রতিদিনই এখানে গাড়ি আটকে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। জনমানুষের ভোগান্তি হচ্ছে। যারা এ রোডের ব্যবসায়ী আছে, তারাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। আমাদের অনেক কাস্টমার বেহাল সড়কের কারনে আসতে চায়না। আমাদের দাবি দ্রুত সড়কটি যাতে মেরামত করা হয়। বাসের কয়েকজন যাত্রী বলেন, এমন দুর্ভোগ সবসময় পোহাতে হচ্ছে। আমাদের দাবি, কর্তৃপক্ষ যাতে দ্রুত সমস্যাটি সমাধানে এগিয়ে আসে।

কুমিল্লা জেলা ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (প্রশাসন) মো. এমদাদুল হক বলেন, শাসনগাছা বাস টার্মিনালের পশ্চিম পাশের যানজট নিরসনে জেলা পুলিশ সুপার মহোদয়ের প্রচেষ্টায় ও দূরদর্শিতায় মূল সড়ক থেকে ওভার পাসের গোড়া পর্যন্ত আলাদা লেন তৈরি করা হয়েছে। যাতে করে টার্মিনালের বাসগুলো সুশৃঙ্খলভাবে প্রবেশ করতে পারে। কিন্তু পশ্চিম পাশের টার্মিনালে প্রবেশের সড়কটি অত্যন্ত নাজুক হওয়াতে আমাদের উদ্যোগটি সফল হচ্ছে না। বেহাল সড়কে গাড়ি আটকে প্রতিদিন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। যা নিরসনে আমাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী রেজা ই রাব্বী বলেন, শাসনগাছা ওভারপাসের নিচে ও পশ্চিম পাশের টার্মিনালে প্রবেশের সড়কটি আরসিসি ঢালাই সড়ক নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। অল্প সময়ে প্রকল্পটি টেন্ডার প্রক্রিয়ায় যাবে। আগামী বর্ষার আগেই এই সমস্যা লাঘব হবে। 

জাগরণ/এমআর