• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৭, ২০২১, ০৭:২২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ডিসেম্বর ৭, ২০২১, ০১:২২ পিএম

পরকীয়ার বিচার চাইতে গিয়ে অপমানে আত্মহত্যা

পরকীয়ার বিচার চাইতে গিয়ে অপমানে আত্মহত্যা

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায় জুতাপেটার অপমান সইতে না পেরে লিটন হাওলাদার নামে এক দিনমজুরের বিষপানে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। 

মৃত লিটন উপজেলার রমজানপুর এলাকার চড়আইরকান্দি গ্রামের নুরুল হক হাওলাদারের ছেলে। 
 
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, লিটন হাওলাদারের সঙ্গে তার স্ত্রী রাশিদা বেগমের বেশ কিছু দিন ধরে পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এ ঘটনায় গত ১ ডিসেম্বর সকালে ন্যায়বিচারের জন্য লিটন স্থানীয় লিটন বেপারির কাছে যান। উল্টো লিটন বেপারি ক্ষিপ্ত হয়ে দিনমজুর লিটন হাওলাদারকে জুতাপেটা করেন। এ অপমান সইতে না পেরে লিটন ওই দিন রাতে বিষপান করেন। এতে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। 

পরে তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে ২ ডিসেম্বর কালকিনি থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

লিটনের স্ত্রী রাশিদা বেগম বলেন, কী কারণে আমার স্বামী আত্মহত্যা করেছে, তা আমি জানি না।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহ আলম শিকদারসহ বেশ কয়েকজন বলেন, আমি স্থানীয় আজিজ সরদারসহ এলাকার বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছি, স্ত্রীর পরকীয়ার বিষয় নিয়ে লিটন হাওলাদার একই এলাকার লিটন বেপারির কাছে সমাধানের জন্য যান। কিন্তু লিটন বেপারি উল্টো লিটন হাওলাদারকে জুতাপেটা করেন। এ অপমান সইতে না পেরে লিটন বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বলে আমরা জেনেছি।

অভিযুক্ত লিটন বেপারির স্ত্রী শিল্পী বেগম জানান, আমার স্বামী কাউকে কোনো জুতাপেটা করেনি। এ অভিযোগ মিথ্যা।

এ ব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি ইসতিয়াক আসফাক রাসেল বলেন, লিটন হাওলাদারের আত্মহত্যার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল।

এমইউ