• ঢাকা
  • সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১১ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: জানুয়ারি ১০, ২০২২, ০৬:০২ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জানুয়ারি ১০, ২০২২, ১২:০২ পিএম

ছাত্র বলাৎকারের দায় স্বীকার মাদরাসা শিক্ষকের

ছাত্র বলাৎকারের দায় স্বীকার মাদরাসা শিক্ষকের

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার আনোয়ারুল উলুম মাদরাসার টয়লেটে ডেকে নিয়ে ছাত্রকে বলাৎকারের দায় স্বীকার করেছেন অভিযুক্ত শিক্ষক মো. কাউসার। 

রোববার সন্ধ্যায় জেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল ইসলামের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তিনি। পরে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে, শনিবার রাতে শিক্ষক মো. কাউসারকে গ্রেফতার করে পিবিআই। বলাৎকারের ঘটনায় মামলা হওয়ার পর থেকেই তিনি পলাতক ছিলেন।
 
পিবিআই ফেনীর পরিদর্শক মো. মোনায়েম মিয়া জানান, গত ৩০ ডিসেম্বর বিকেলে মাদরাসার আবাসিক ছাত্রকে টয়লেটে ডেকে নিয়ে বলাৎকার করেন শিক্ষক কাউসার। ঐ ঘটনায় মাদরাসার প্রিন্সিপালসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করে ভুক্তভোগী ছাত্রের পরিবার। পরে তিন শিক্ষককে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিলেন শিক্ষক কাউসার। শনিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রোববার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ শেষে শিক্ষক কাউসারকে জেলা কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ভুক্তভোগী ছাত্রের পরিবারের অভিযোগ, বলাৎকারের বিষয়ে মাদরাসার প্রিন্সিপালসহ তিন শিক্ষককে জানালে তারা কোনো ব্যবস্থা নেননি। উল্টো ঐ শিক্ষককে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করেন।

দাগনভূঞা থানার ওসি হাসান ইমাম জানান, মাদরাসার টয়লেটে ছাত্রকে বলাৎকারের মামলার চার আসামিই গ্রেফতার হয়েছে। একজন আদালতে দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে।

ইউএম