• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১১ আশ্বিন ১৪২৯
প্রকাশিত: মার্চ ১৭, ২০২২, ০৩:৫৬ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মার্চ ১৭, ২০২২, ০৯:৫৬ এএম

ডাকাত সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

ডাকাত সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

গাইবান্ধা সদর উপজেলার খোলাহাটি ইউনিয়নে ডাকাত সন্দেহে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার সাবেক শ্বশুড় বাড়ির লোকজন। তবে নিহত ব্যাক্তির পরিবারের দাবি তার সাবেক স্ত্রীর সাথে প্রেমের সর্ম্পকের জের ধরে স্ত্রীর পরিবারের লোকজন তাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। 

বৃহস্পতিবার (১৭ মার্চ) খোলাহাটি ইউনিয়নের মায়না বাজার এলাকার বর্মত্বত গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয়রা জানান, গাইবান্ধা শহরের সরকার পাড়ার বাসিন্দা মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে সাখাওয়াত হোসেনের সাথে দুই বছর আগে খোলাহাটী ইউনিয়নের আনালেরতাড়ির বর্মত্বত গ্রামের মৃত সৈয়দ আলীর মেয়ে শিউলী বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে দুজনের মধ্যে মনোমালিন্য হওয়ায় দুজনের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। বিচ্ছেদের পর শিউলি বেগমের সাথে একই গ্রামের বায়োজিত ইসলামের আবারও বিয়ে হয়। শিউলীর সাথে বিবাহ বিচ্ছেদ হলেও দুজনের মধ্যে গোপনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রায়ই রাত হলে সাকোয়াত শিউলির বাড়ির আশপাশে ঘোরাঘুরি করতো। এ নিয়ে কয়েকদিন আগেও তার আগের শ্বশুর বাড়ির লোকজনের সাথে বাকবিতণ্ডা এমনকি হাতাহাতি পর্যন্ত হয়। সাকোয়াত প্রায় সময় নেশাগ্রস্ত অবস্থায় থাকতো বলেও জানান স্থানীয়রা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গাইবান্ধা সদর থানার ওসি মাসুদুর রহমান জানান, বুধবার রাতে সাখোয়াত তার তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী শিউলীর সাথে গোপনে দেখা করতে যায়। এসময় ঘরে থাকা শিউলীর স্বামী বায়োজিদ ইসলাম ও তার স্বজনরা ডাকাত এসেছে বলে চিৎকার করে গ্রামবাসীকে খবর দেয়। এতে গ্রামবাসী ক্ষুদ্ধ হয়ে লাঠিসোঠা নিয়ে সাকোয়াতকে মারপিট করে। পরে স্থানীয়রা ঘটনা বেগতিক দেখে সকালে ৯৯৯ এ ফোন দিলে পুলিশ এসে তার মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় পরের স্বামী বায়োজিদ ও স্ত্রী শিউলীকে আটক করেছে পুলিশ। সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে এখনো কোন লিখিত অভিযোগ পাননি তিনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষ মামলা করা হবে বলেও জানান তিনি।

জাগরণ/আরকে