• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯
প্রকাশিত: মে ১৫, ২০২২, ০৫:০৪ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : মে ১৫, ২০২২, ১১:০৪ এএম

আসামির দায়ের কোপে কবজি গেল পুলিশের

আসামির দায়ের কোপে কবজি গেল পুলিশের

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় আসামির দায়ের কোপে হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে এক পুলিশ সদস্যের। আহত পুলিশ সদস্যের নাম মো. জনি খান (২৮)। একই ঘটনায় মামলার বাদী ও অপর এক পুলিশ কনস্টেবল আহত হয়েছেন। 

আজ রবিবার (১৫ মে) সকালে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের লালারখীল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, পদুয়া ইউনিয়নের লালারখীলের মৃত আলী হোসেনের পুত্র কবির আহমদ বাড়িতে অবস্থান করছে মর্মে গোপন সংবাদ পায় পুলিশ। গতকাল সকালে মামলার বাদীকে নিয়ে পলাতক আসামি কবির আহমদের বাড়িতে অভিযানে যান লোহাগাড়া থানার এসআই ভক্ত চন্দ্র দত্ত, এএসআই মজিবুর রহমান, কনস্টেবল মো. জনি খান ও শাহাদাত হোসেন।  

পুলিশের উপস্থিতির বিষয়টি বুঝতে পেরে আসামি কবির আহমদ দা হাতে নিয়ে ঘরের উঠানে দাঁড়িয়ে থাকে। কনস্টেবল মো. জনি খান ও শাহাদাত হোসেন তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করলে আসামি কবির আহমদ পুলিশ সদস্য ও মামলার বাদীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় কনস্টেবল জনি খানের বাঁ হাতের কবজি সম্পূর্ণভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।  

এ ছাড়াও কনস্টেবল শাহাদাত হোসেন ও মামলার বাদী আবুল হোসেন কালুও আহত হন। পরে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন আহত পুলিশ কনস্টেবল ও মামলার বাদীকে উদ্ধার করে লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া মো. জনি খানকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। আহত অন্য দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শিবলী নোমান জানান, কবির আহমদ একটি নিয়মিত মামলা ছাড়াও বেশ কয়েকটি মামলার আসামি। গতকাল সকালে তার ঘরে অবস্থানের বিষয়ে তথ্য পেয়ে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তারের জন্য যায়। তখন আসামি কবির আহমদের দায়ের কোপে কনস্টেবল মো. জনি খানের হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এ ছাড়া অপর এক পুলিশ কনস্টেবল ও মামলার বাদী আহত হয়েছেন। আসামি কবির আহমদকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে পুলিশ।