• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২২, ০৮:০৮ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : জুন ২১, ২০২২, ০২:০৮ পিএম

পদ্মায় ধসে পড়লো স্কুলের চারতলা ভবন

পদ্মায় ধসে পড়লো স্কুলের চারতলা ভবন

প্রবল স্রোতের তোড়ে পদ্মায় ভেঙে পড়েছে মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার আজিমনগর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের চারতলা ভবন। বিদ্যালয়টি পদ্মার দুর্গম চরের তিনটি ইউনিয়নের একমাত্র বিদ্যাপীঠ।

মঙ্গলবার (২১ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে চারতলা ভবনটি হঠাৎ ধসে পড়ে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আওলাদ হোসেন চৌধুরী বিপ্লব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্কুলভবন ধসে যাওয়ায় সাড়ে চারশ শিক্ষার্থীর লেখাপড়া নিয়ে অনিশ্চিয়তা তৈরি হয়েছে। তবে বিকল্প জায়গায় পাঠদানের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান শিক্ষক।

আওলাদ হোসেন জানান, গতবছরই বিদ্যালয়ের আশপাশের এলাকায় তীব্র ভাঙন শুরু হয়। সরকারি প্রাইমারি স্কুলসহ নদীতে বিলীন হয়েছে বাজার ও বাড়িঘর। শুক্রবার (১৮ জুন) আকম্মিক পদ্মার ভাঙন ভয়াব রূপ নিলে বিদ্যালয় ভবনটি ঝুঁকির মধ্যে পড়ে। এরপর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়। মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয় ভবনটি হঠাৎ ধসে পড়ে।

পাঠদান চালিয়ে নেওয়ার জন্য ভবন ধসে পড়ার আগেই বিদ্যালয়ের একটি টিনশেড ঘর আধা কিলোমিটার দূরে সরিয়ে নেওয়া হয় বলে জানান প্রধান শিক্ষক। তিনি জানান, সেখানেই অস্থায়ী ঘর তুলে বিদ্যালয় চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।

সূত্র জানায়, রোববার (১৯ জুন) মানিকগঞ্জ জেলা সহকারী শিক্ষা প্রকৌশলী মো. হাকিমুল হাসান সিদ্দিকী, জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. আবুল কালাম আজাদ ও হরিরামপুর উপজেলা শিক্ষা সহকারী প্রকৌশলী মো. সবুজ বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে একটি প্রতিবেদন দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মাইন উদ্দিন বলেন, ‘১৯ জুন জেলা সমন্বয় সভায় বিদ্যালয়টির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে আলোচনা করা হলে আমরা ওইদিন বিকেলেই ভাঙনকবলিত স্থান পরিদর্শন করি। এ মুহূর্তে বিদ্যালয়সংলগ্ন এলাকায় জিও ব্যাগ ফেলেও বিদ্যালয়টি রক্ষা করা সম্ভব নয়, এমনটি উল্লেখ করে জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। শুধু তাই নয়, গতবছর বর্ষা মৌসুমেও বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করে আমরা তখনও জানিয়েছিলাম, বিদ্যালয়ের চলমান নবনির্মিত ভবনের কাজটি যেন করা না হয়।’

দুর্গম চরাঞ্চল আজিমনগর ইউনিয়নের হাতিঘাটায় ২০০৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় আজিমনগর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়। ওই সময় এডিবির অর্থায়নে টিনশেডের ১৫টি রুম তৈরির মধ্যদিয়ে যাত্রা শুরু হয়। গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৬৬ লাখ ৯৭ হাজার টাকা ব্যয়ে শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীনে চারতলা ফাউন্ডেশনে একতলা ভবন নির্মাণ করা হয়।

২০১৯-২০ অর্থবছরে ১ কোটি ২৩ লাখ ৫০ হাজার বরাদ্দে পুনরায় শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে ওই একতলার ওপরেই আরও তিনতলা ভবনের অনুমোদন দেওয়া হলে বিদ্যালয়টির চারতলা পর্যন্ত ভবনের কাজ অনেকটাই সম্পন্ন হয়। এর পরেই দেখা দেয় ভয়াবহ ভাঙন। এতে করে বিদ্যালয়ের বাকি কাজ বন্ধ রাখা হয় এবং বিদ্যালয়ের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হলে অন্যান্য আসবাবপত্র সরিয়ে নেওয়া হয়।

মানিকগঞ্জ জেলা সহকারী শিক্ষা প্রকৌশলী মো. হাকিমুল হাসান সিদ্দিকী বলেন, গত ১৯ জুন পরিদর্শন শেষে বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবনটি নিলামের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু তার আগেই ভবনটি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।