• ঢাকা
  • সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৩, ১১:৪১ পিএম
সর্বশেষ আপডেট : ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২৩, ১১:৪১ পিএম

গোপনাঙ্গ কর্তনে মৃত্যু

গোপনাঙ্গ কর্তনে মৃত্যু
ছবি ● ফাইল ফটো

২০২২ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি এক গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে থানায় মামলা এবং গ্রেফতার হন এরশাদুল।

সম্প্রতি তিনি জামিনে বের হয়ে আবারও ওই গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। তবে এবার আর নির্যাতন সহ্য করেন নি ওই গৃহবধূ, নিজেকে রক্ষায় করেছেন পাল্টা আক্রমণও। ব্লেড দিয়ে কর্তন করেছেন ওই অভিযুক্তর গোপনাঙ্গ। শেষে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন এরশাদুল।

মঙ্গলবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল আটটার দিকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাত আটটার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক ইউনিয়নের মাদারগাছি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত এরশাদুল ইসলামের বাড়ি ওই গ্রামেই। কিচক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন, এরশাদুলের কিচক ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। 

আটক গৃহবধূর স্বামী সাংবাদিকদের বলেন, ‘এরশাদুল জামিনে বের হয়ে আবার তার স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করতে থাকেন। সোমবার (৬ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় তিনি বাজারে গেলে এরশাদুল তাদের বাড়ি গিয়ে আবার তার স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।’

তিনি বলেন, ‘এ সময় আমার স্ত্রী ব্লেড দিয়ে এরশাদের গোপনাঙ্গ কেটে দেয়। পরে পুলিশ এসে স্ত্রীকে আটক করে নিয়ে গেছে।’

ছিলিমপুর মেডিক্যাল ফাঁড়ির এসআই আনিসুর রহমান বলেছেন, ‘ঘটনার খবর পেয়ে ওই গৃহবধূকে আটক করা হয়েছে।’

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মনজুরুল আলম জানান, ‘এরশাদুলের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার মামলায় পুলিশ চার্জশিটও দাখিল করেছিল। গত তিন মাস আগে তিনি জামিনে বের হন।’

এরপর আবারও তিনি ওই নারীকে উত্ত্যক্ত করতে থাকেন। এরই এক পর্যায়ে  সোমবার রাতে ওই নারীর কাছে গেলে ব্লেড দিয়ে তার গোপনাঙ্গ কেটে দেয়। পরে তাকে আহত অবস্থায় শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। কিন্তু সোমবার সকালে তিনি মারা যান। 

জাগরণ/স্বদেশ/এসএসকে